মান্দায় আত্রাই নদীতে ড্রেজার দিয়ে বালু উত্তোলন

নওগাঁর মান্দায় নিয়ম-নীতির তোয়াক্কা না করে আত্রাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। নদীতে ড্রেজার মেশিন বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করায় হুমকির মধ্যে পড়েছে নদী রক্ষা বাঁধ ও আবাদি জমি।

প্রশাসনের নাকের ডগায় ৩টি ড্রেজার মেশিন বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হলেও যেন দেখার কেউ নেই। সরেজমিন উপজেলার পাঠাকাটা/আঁয়াপুর নামক স্থানে গিয়ে দেখা গেছে, নদীর ঘাটের উত্তর পার্শ্বে নদীতে কোনো চর না থাকলেও ড্রেজার মেশিন বসিয়ে দেদারসে বালু উত্তোলন ও বিক্রয় করা হচ্ছে। খনন করে বালু উত্তোলনের বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও ইজারাদাররা তা মানছেন না।

এ বিষয়ে স্থানীয় এলাকাবাসী এসব ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধের দাবিতে জেলা প্রশাসক বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ প্রদান করেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মান্দা উপজেলার ২নং ভালাইন ইউনিয়নের পাশ দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে আত্রাই নদী। উক্ত নদীর কিনারার রাস্তা (বাঁধ) দিয়ে হাজার হাজার লোকজন এবং যানবাহন চলাচল করে থাকে। বর্তমানে উক্ত নদীর পাঠাকাটা/আঁয়াপুর ঘাটের উত্তর পার্শ্বে প্রায় দেড় কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকায় নদীতে ৩টি ড্রেজার মেশিন স্থাপন করে নদীর বাঁধের রাস্তার ধার ঘেঁষে অবৈধভাবে বালু এবং মাটি উত্তোলন করছে একটি প্রভাবশালী মহল।

এতে করে নদীর বাঁধের সরকারি রাস্তটি নদী গর্ভে বিলীনসহ ব্যাপক ক্ষতির শঙ্কা করছেন স্থানীয় এলাকাবাসী। এমতাবস্থায় উক্ত ড্রেজারগুলো দিয়ে আত্রাই নদী থেকে অবৈধভাবে  বালু তোলা বন্ধ করা একান্ত আবশ্যক বলে মনে করছেন সচেতন এলাকাবাসী।

জেলা প্রসাশক বরাবর দায়েরকৃত অভিযোগের অনুলিপি মান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার, পানি উন্নয়ন বোর্ড নির্বাহী প্রকৌশলী, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও মান্দা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবং ২নং ভালাইন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দপ্তরে প্রেরণ করা হয়েছে।