সনদ জালিয়াতির অভিযোগ নোয়াখালীতে প্রভাষক আটক

নোয়াখালীর হাতিয়ায় জাল সনদের মাধ্যমে শিক্ষকতা করার অভিযোগে এক কলেজ প্রভাষককে আটক করেছে দুদুক।

রবিবার (১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তাকে আটক করা হয়।

অভিযুক্ত শাহিদা আক্তার হাতিয়া উপজেলার চর কৈলাশ গ্রামের কে এম ওবায়েদুল্লাহর স্ত্রী।  

সূত্রে জানা যায়, শাহিদা আক্তার রুবি বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ এর ২০১০ সনের পরীক্ষার রোল-৪০৬০২৭৯৪, রেজি-১০০০০১২৬২ ,পরীক্ষা- ষষ্ঠ-২০১০ ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি এর প্রভাষক পদে একটি জাল ও ভুয়া সনদ প্রস্তুত করে হাতিয়া ডিগ্রী কলেজে প্রভাষক (ইসলামের ইতিহাস) হিসেবে যোগদান করেন। 

পরবর্তীতে এমপিওভুক্ত হয়ে ইনডেক্স নং ৩০৮৪৪২১ মূলে ০১-১১-২০১২ তারিখ হতে ৩১-০৩-২০১৬ তারিখ পর্যন্ত বেতন ভাতা বাবদ ৫,৩৮,৯৭৫/- টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন। 

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শণ ও নিরীক্ষা অধিদপ্তরের শিক্ষা পরিদর্শক টুটুল কুমার নাগ এবং অডিট অফিসার গোলাম মুর্তজা গত ০৩-১২-২০১৫ তারিখে নোয়াখালী জেলার হাতিয়া উপজেলার হাতিয়া ডিগ্রী কলেজ নিরীক্ষা করলে সনদের সত্যতা নিশ্চিত না হওয়ায় এটিকে জাল সনদ হিসাবে আখ্যায়িত করেন। 

এ বিষয়ে নোয়াখালী দুদকের সহকারী পরিচালক সুবেল আহমেদ জানান, শাহিদা আক্তার রুবি প্রভাষক (ইসলামের ইতিহাস) হিসেবে  হাতিয়া ডিগ্রী কলেজে দীর্ঘদিন ধরে জাল সনদের মাধ্যমে শিক্ষকতা করে আসছিল।