ময়মনসিংহের তাহের হত্যার রহস্য উদঘাটন

ময়মনসিংহের ত্রিশালে ৮ম শেণির ছাত্র আবু তাহের হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পিবিআই। এক ছাত্রীকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় তাকে হত্যা করা হয়।

নিহত আবু তাহের উপজেলার সাউথকান্দা আরজি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্র। সে সাউথকান্দা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে।

ময়মনসিংহ জেলার পিবিআই'র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু বকর সিদ্দিক জানান, গত ৩০ মে সকালে ত্রিশালের খিরো নদীর পাড়ে আছাদুজ্জামানের বাঁশ বাগানে আবু তাহেরের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ওই রাতে আবু তাহেরের বাবা নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ত্রিশাল থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

তিনি বলেন, উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে পিবিআই পুলিশ পরিদর্শক সালাহ উদ্দিন আহমেদকে তদন্তের নির্দেশ দেয়া হয়। পরে সন্দেহজনকভাবে একই গ্রামের শহীদুল ইসলামের ছেলে ফরিদ খান (১৯) কে গ্রেপ্তার পিবিআই পুলিশ। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে ফরিদ জানায়, তার সহপাঠী ও কিছু বখাটে ছেলে এক ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় মৃত আবু তাহের প্রতিবাদ করে এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষকের নিকট মেয়েটিকে সঙ্গে নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে নালিশ করে। এরই জেরে আসামীরা গত ২৪ মে বিকালে আবু তাহেরকে ডাব খাওয়ানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে যায়। সন্ধ্যার পর ৮ জন মিলে আবু তাহেরকে নৃশংসভাবে হত্যা করে বাঁশ ঝাড়ের জঙ্গলে লতা পাতা দিয়ে ঢেকে রেখে তারা ব্যবহৃত বাই-সাইকেল ও মোবাইল ফোন নিয়ে যায়।

শনিবার (১৯ অক্টোবর) দুপুরে প্রধান আসামি ফরিদ আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিতে আবু তাহেরকে হত্যার কথা স্বীকার ও বাকী আসামিদের নাম বলে। পরে আদালত তাকে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

তদন্তের স্বার্থে বাকী আসামিদের নাম বলেননি পুলিশের ওই কর্মকর্তা।