সংশয় সন্তান কার, আড়াই বছরের শিশুকে হত্যা করল বাবা

ফরিদপুরের সদরপুরে দুই বছর চার মাস বয়সী সন্তান রহমতকে শ্বাস রোধ করে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার বাবার বিরুদ্ধে।

শুক্রবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। সন্তানের পিতৃত্ব নিয়ে সন্দেহের জেরে এ হত্যাকাণ্ড বলে পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে।

হানিফের স্ত্রী স্বপ্না বেগম বাদী হয়ে সদরপুর থানায় স্বামীকে একমাত্র আসামি করে হত্যা মামলা করেছেন। এ ঘটনার পর থেকে হানিফ পলাতক।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, তিন বছর আগে সদরপুর উপজেলার ডাঙ্গি গ্রামের শুকুর প্রামাণিকের ছেলে হানিফ প্রামাণিকের সঙ্গে নগরকান্দা উপজেলার পাড়াদিয়া গ্রামের স্বপ্নার বিয়ে হয়। হানিফ ঢাকায় লেগুনা চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। তবে তিন মাস ধরে তিনি বেকার ছিলেন।

হানিফের পরিবারের সদস্যরা বলছেন, রহমতের জন্মের পর থেকে হানিফের সন্দেহ হয় যে এই সন্তানের বাবা তিনি নন। এ নিয়ে প্রতিনিয়ত স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া হতো তাঁর।

হানিফের স্ত্রী স্বপ্না বেগম বলেন, গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে তিনি সন্তানকে নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলেন। রাত নয়টার দিকে ঘুম ভেঙে গেলে দেখেন, ছেলে তাঁর পাশে নেই। তিনি তাঁর শ্বশুর-শাশুড়ি ও আশপাশের লোকেদের সহায়তায় খোঁজাখুঁজি করে বাড়ি থেকে বেশ দূরে সন্তানের লাশ পান। পরে সদরপুর থানা-পুলিশ গিয়ে লাশটি উদ্ধার করে।

সদরপুর থানার উপপরিদর্শক ফরহাদ হোসেন বলেন, শিশু রহমতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে হানিফ পলাতক। তাঁকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।