ঝালকাঠিতে স্কুল ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন নিয়ে সংঘর্ষ

অভ্যান্তরীন কোন্দলের জের ধরে ঝালকাঠি সদর উপজেলার নথুল্লাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনির্দিকালের জন্য স্থগিত করে দেয়া হয়েছে।

সোমবার দুপুরে নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম হারুন অর রশীদ নির্বাচন স্থগিতের ঘোষণা দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, সোমবার নথুল্লাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবার কথা ছিল। সকাল ১০টা থেকে ১১টার মধ্যে সভাপতি পদে ভোট নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রিজাইডিং অফিসার সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম হারুন অর রশীদ সোয়া ১১টায় বিদ্যালয়ে আসেন। এর আগে সকাল থেকে সভাপতি পদে অংশ নেয়া সরদার নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর ও সাইদুর রহমান সেন্টুর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

এক পর্যায়ে সাইদুর রহমান সেন্টুর সমর্থক নথুল্লাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দাতা সদস্য ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনিসুর রহমানের মুখমন্ডলে এলোপাতারি ভাবে ঘুষি মেরে তাকে আহত করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। আহত আনিসুর রহমান বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।

আহত আনিসুর রহমানের অভিযোগ নলছিটি উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মফিজুল ইসলাম শাহীন ও সরদার নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর মিলে চেয়ার দিয়ে ও কিল ঘুষি মেরে তাকে মারধর করেছে।

এ ব্যাপারে  সরদার নজরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর সাংবাদিকদের বলেন,আমি এ নির্বাচনে জয়লাভ করব ভেবে আমার প্রতিপক্ষরা ষড়যন্ত্র করে নির্বাচন স্থগিত করেছে।

নথুল্লাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তোফাজ্জেল হোসেন বলেন, নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম হারুন অর রশীদ নির্বাচন পরিচালনার জন্য আমার কাছে ২৫ হাজার টাকা দাবি করেছে। তিনি সময় মতো স্কুলে আসলে এ ঘটনা ঘটত না।

নির্বাচনের প্রিজাইডিং অফিসার সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা একেএম হারুন অর রশীদ বলেন, ১১টায় আমার বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকার কথা ছিল আমি মাত্র ১৫ মিনিট দেরি করে এসেছি। আমি কোনো টাকা চাইনি।

ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা ঝালকাঠির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( সদর সার্কেল ) এমএম মাহাম্মুদ হাসান বলেন, সকাল থেকে বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে পুলিশ মোতায়েন ছিল। যার ফলে তেমন কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা এখানে ঘটেনি। আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে জেলা পুলিশ সব সময় কাজ করছে।