জয়পুরহাটে জামায়াত-বিএনপির ৬১ জন কারাগারে

জয়পুরহাটে হত্যা ও নাশকতার বিরুদ্ধে পুলিশের দায়ের করা মামলায় ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করা জামায়াত-বিএনপির ৬১ নেতাকর্মীর জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

মঙ্গলবার দুপুরে শুনানি শেষে জুডিশিয়াল আদালতের অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট ইকবাল বাহার এ রায় দেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০১৩ সালের ১৫ ডিসেম্বর বিএনপির ডাকা হরতাল চলাকালে জয়পুরহাটের পুরানাপৈল বাজারের কৃষি ব্যাংকে পেট্রোল বোমা হামলা করে জামায়াত শিবিরের নেতা-কর্মীরা। এ সময় পুলিশ র‌্যাব ও বিজিবির টহল দল বাধা দিতে গেলে তারা তীর ধনুক নিয়ে হামলা করে। প্রশাসনের বাধায় পরে তারা পিছু হটে পুরানাপৈল ইউনিয়নের হালট্টি এলাকায় মসজিদের মাইকে পুলিশ র‌্যাব ও বিজিবিকে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে জামায়াত শিবিরের নেতা-কর্মীদের সমবেত হওয়ার আহ্বান জানান। এ সময় হাজার হাজার বিএনপি-জামায়াত নেতাকর্মী তীর-ধনুক নিয়ে পুলিশের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে পেট্রোল বোমা ছুঁড়তে থাকে। পরে তারা এলোপাতারিভাবে গুলি ছুঁড়লে সেই গুলিতেই জামায়াত-শিবিরের ৫ জন নিহত হয়। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ ওই সময় কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়ে।

এ ঘটনায় জয়পুরহাট সদর থানায় পুলিশ ১০৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। পরে তদন্ত করে পুলিশ ২০১৯ সালের জুন মাসের ২০ তারিখে ৯৯ জন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করলে ৬১ জন আসামি স্বেচ্ছায় আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

আসামিপক্ষের আইনজীবী মামুনুর রশীদ জানান, ৯৯ জন আসামির মধ্যে ৩ জন উচ্চ আদালতের জামিন নিয়েছে আর ২ জন আসামি মৃত্যুবরণ করেন, ৬১ জন মঙ্গলবার আদালতে আত্মসমর্পণ করলেও বাঁকি আসামিরা পালাতক রয়েছেন।