ইসলামপুরে বিনামূল্যে গরু বিতরণের নামে অনিয়ম

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে বিনামূল্যে গরু বিতরণের নামে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের বিরুদ্ধে।

জানা যায়, গেল বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের অর্থনৈতিক সুরক্ষা দিতে জামালপুর ও কুড়িগ্রামে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র জনরেগাষ্ঠীর মাঝে বিনামূল্যে গরু বিতরণ করার লক্ষ্যে পল্লী উন্নয়ন একাডেমি বগুড়া ‘প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর দারিদ্র্য হ্রাসকরণ’ শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণ করে। এ প্রকল্পের অধীনে ইসলামপুর উপজেলার ১২টি ইউনিয়নে ৩ হাজার ২৪০টি গরু বিতরণের কথা রয়েছে। এতে প্রতিটি ইউনিয়নে ২৭০ জনকে মাথাপিছু একটি হারে গরু বিতরণ করা হবে। প্রকল্পের শর্তানুযায়ী ইতোমধ্যে স্ব-স্ব ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বারবা সুবিধাভোগিদের তালিকা প্রস্তুত করেছেন।

অভিযোগ ও সরেজমিনে জানা গেছে, ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র সুবিধাভোগিদের মাঝে বিনামূল্যে গরু বিতরণের ‘পল্লী উন্নয়ন একাডেমি বগুড়া’ প্রকল্প গ্রহণ করলেও প্রকল্পের নির্দেশনা না মেনে একদিকে সুবিধাভোগিদের তালিকা প্রস্তুত করেছে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারবা। অন্যদিকে গরু বিতরণের নামে কোনো ইউনিয়নে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে মাথাপিছু ৫ হাজার টাকা। কোনো ইউনিয়নে প্রতিটি গরুর জন্য ১০ হাজার টাকা হারে টাকা তোলা হচ্ছে।

আবার কোনো ইউনিয়নে প্রতিটি গরু বিতরণের নামে ২০ হাজার টাকা পর্যন্তও নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এসব টাকা সংগ্রহের দায়িত্ব পালনে ইউপি মেম্বাররাই রয়েছেন বলে খোদ মেম্বারদেরই অভিযোগ। এছাড়া ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সাঙ্গপাঙ্গরা গরু বিতরণের নামে সুবিধাভোগিদের নিকট লাখ লাখ টাকা উত্তোলন করেছে। 

গরু বিতরণের নামে সুবিধাভোগি দরিদ্রদের নিকট টাকা উত্তোলনের কথা কোনো ইউপি চেয়ারম্যান স্বীকার করেননি। অপরদিকে, টাকা ছাড়া কারো নামেই গরু বিতরণের তালিকায় দেওয়া হয়নি, স্থানীয়দের অভিযোগ।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান জানান, গরু বিতরণে কোনো টাকা নেওয়া যাবে না। যদি কেউ টাকা নিয়ে থাকেন, সেটা অন্যায়। বরং যাচাই-বাছাই করেই বিনামূল্যে সুবিধাভোগিদের মাঝে গরু বিতরণ করা হবে।