ঠাকুরগাঁওয়ে বাঁশ কাটা নিয়ে সংঘর্ষে আহত ১০

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নারগুন কহরপাড়া এলাকায় বাঁশ কাটাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। সদর উপজেলা নারগুন কহরপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শনিবার (৪ জানুয়ারি) সকালে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা গুরুতর অবস্থায় ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় শনিবার দুপুরে রশনী সরকার বাদী হয়ে ১১ জনের বিরুদ্ধে ঠাকুরগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ে করেছেন। আসামিরা হলেন- চন্দ্র মোহন, চৈতন্য, রাজকুমার, সুমন, প্রসান্ত সরকার, নারায়ন, ললিতা, কামনা, স্মৃতি, ধীরেন ও ছায়া রানী।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শনিবার সকালে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা নারগুন কহরপাড়া এলাকার রশনি সরকারের বাঁশ বাগানে বাঁশ কাটতে যায় চন্দ্র মোহন, চৈতন্যসহ কয়কজন। খরব পেয়ে রশনি সরকারের পরিবারের লোকজন বাধা দিলে গেলে মোহন, চৈতন্যসহ অন্যন্যা লোকজন দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা করে। এ সময় ঘটনাস্থলে প্রায় ১০ জন গুরুতর আহত হয়। তাৎক্ষণিকভাবে এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে আহতদের ভর্তি করে। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গেলে তারা পালিয়ে যায়।

বাদী রশনী সরকার জানান, ওই বাঁশ বাগান দীর্ঘদিন যাবৎ আমার ভোগদখলে রয়েছে। কিন্তু এলাকার সন্ত্রাসী চন্দ্র মোহন, চৈতন্য ও রাজকুমার দখল করতে আসলে আমরা বাধা দেই। পরে তারা আমাদের ওপর হামলা চালিয়ে প্রায় ১০ জনকে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশিকুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ঠাকুরগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। তদন্ত অনুযায়ী দ্রুত আসামিদের গ্রেপ্তার করা হবে বলেও জানান ওসি।

তবে এ অভিযোগের বিষয়ে চন্দ্র মোহন ও তাদের লোকজনের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাদের পাওয়া যায়নি।