জামালপুরে বরাদ্দ সংকটে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণে স্থবিরতা

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় বরাদ্দ সংকটে যমুনার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণে স্থবিরতায় এলাকাবাসীর মধ্যে আগাম বন্যা আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলা সভাকক্ষে 'বন্যার বিপদসীমা সম্পর্কিত উপজেলা পর্যায়ে মতবিনিময় সভায়' এ বিষয়ে আলোকপাত হয়।

ইউএনও মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও ইসলামিক রিলিফ বাংলাদেশের সহযোগিতায় অনুষ্ঠিত সভায় উপস্থিত ছিলেন জামালপুর পাউবো'র নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সাইদ, বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান ভূইয়া প্রমুখ।

জানা যায়, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে উপজেলার মোরাদাবাদ-দেওয়ানগঞ্জ সীমানা পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধ নির্মাণে ৮০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়।

ইতিমধ্যে বাঁধের প্রায় ১২০০ মিটার কাজ সম্পন্ন হলেও বরাদ্দের অভাবে ১৮০০ মিটার কাজ বন্ধ রয়েছে। ফলে যমুনার তীরবর্তী কয়েকটি গ্রামের মানুষ আগামী বছরও বন্যা আতঙ্কে রয়েছেন।

এলাকাবাসী জানান, বাঁধটির কাজ সম্পন্ন না হলে ২০১৭ সালের বন্যার চেয়েও আগামী বন্যায় বেশি ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মেহেদী হাসান টিটু জানান, যমুনার তীরবর্তী মানুষদের বন্যারকবল থেকে রক্ষায় বাঁধের জন্য আরও ৬০ মেট্রিক চাল বরাদ্দ পাওয়া গেছে, যা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল।