মোরেলগঞ্জে বেওয়ারিশ মরদেহের দায়িত্ব নিলেন চেয়ারম্যান

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে হাসপাতালে মরদেহ রেখে পালিয়েছে স্বজনেরা। টানা ১৮ ঘন্টা পরে হাসপাতালে পড়ে থাকলেও দায়িত্ব নেয়নি কেউ। এমন অবস্থায় মানবিকতা বিবেচনায় বেওয়ারিশ মরদেহের দায়িত্ব বুঝে নিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান।

মৃতের নাম আব্দুর রাজ্জাক (৭০)। তিনি রবিবার রাত ৯টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা ৩টায় নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে রাজ্জাকের মরদেহ হাসপাতাল থেকে বুঝে নিয়েছেন।

এরআগে, অজ্ঞাত ব্যাক্তিরা রোগীর স্বজন পরিচয়ে রবিবার বেলা ৩টার দিকে রাজ্জাককে হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে পালিয়ে যায়। পরে ওই রোগীর মৃত্যূ হলে তার স্বজনেরা নিখোঁজ থাকায় নানা জটিলতার কারণে রবিবার রাত ৯টা থেকে বৃদ্ধ রাজ্জাকের মরদেহ হাসপাতালের বারান্দায়ই পড়ে ছিল।

হাসপাতালে থাকা তথ্যমতে আব্দুর রাজ্জাক ভাষান্দল গ্রামের জয়নাল শেখের ছেলে। কিন্তু তার মৃত্যুর পরে ওই ঠিকানায় রাজ্জাক নামে কোন ব্যাক্তির সন্ধান পাওয়া যায়নি।

এ সম্পর্কে চেয়ারম্যান রহিম বাচ্চু জানান, মানবিক করাণে ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অনুরোধে বৃদ্ধ লোকটির মরদেহ বুঝে নিয়েছি। তাকে ইউনিয়ন পরিষদের গণকবরস্থানে দাফন করা হবে। তবে সে প্রকৃতপক্ষে কোন এলকার বাসিন্দা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. কামাল হোসেন মুফতি বলেন, বৃদ্ধ রাজ্জাকের ঠিকানা ও স্বজনকে পাওয়া যায়নি। গণকবরে দাফনের জন্য চেয়ারম্যানের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।