জ্বর-বমি নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ৯, মৃত্যু একজনের

বরগুনা পাথরঘাটায় একই বাড়ির নয়জন জ্বর, বমি নিয়ে অসুস্থ হয়ে পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। এদের মধ্যে একজন মারা গেছেন।

উপজেলার সদর ইউনিয়নের টেংরা গ্রামে ঘটেছে এ ঘটনা।

পাথরঘাটা হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (১৮ ফেরুয়ারি) ওই বাড়ির সদস্য মানিক (৩০) নামে একজন হাসপাতালে ভর্তি হয়। কিছুক্ষণ পরই তার মৃত্যু হয়। এরপর বুধবার একই বাড়ির আটজন অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে আসেন। যারা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন তারা প্রত্যেকেই মৃত মানিকের স্বজন। এ ঘটনার পর থেকেই পুরো গ্রামজুড়ে করোনাভাইরাস আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

অসুস্থরা হলেন- মানিকের ছেলে সাইফুল ইসলাম (০৯), ছোট বোন মিনারা বেগম (৩০), ভাতিজি পারভিন (২২), ভাতিজি সাহরিন (১১), ভাতিজা জারিফ (৬), ভাতিজি জান্নাত (৯), ইমা (১১) এবং চাচাতো বোন নাসরিন (৩০)। এদের মধ্যে মিনারা, সাবরিনা ও ইমা গুরুতর।

হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক সাইদুল আরেফিন জানান, করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। যারা হাসপাতালে এসেছেন তারা সবাই জ্বর বমি, পাতলা পায়খানায় আক্রান্ত হয়ে এসেছে। গতকাল ওই বাড়ির সদস্য মানিক একই সিনটম নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে কিছুক্ষণ পরে মারা গেছেন।

ডা. আবুল ফাত্তাহ জানান, একই বাড়ির আটজন অসুস্থ ও একজনের মৃত্যুর বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। তবে পরীক্ষা ছাড়া কিছুই বলা যাচ্ছে না। পাথরঘাটা উপজেলা কমপ্লেক্সে এ সংক্রান্ত পরীক্ষা না থাকার কারণে তাদের বরিশাল শেরে বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যেতে বলা হয়েছে।