গোপালগঞ্জে চাচাতো ভাইদের ফাঁসাতে মসজিদে আগুন

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় চাচাতো ভাইদের ফাঁসাতে মসজিদে আগুন দিয়েছে আমিনুল তালুকদার ও হাফিজুল তালুকদার নামের দুই ব্যক্তি। আগুনে কাঠ-টিনের তৈরি মসজিদ ঘরটির অধিকাংশই পুড়ে গেছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

রবিবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে উপজেলার তারাশী গ্রামের মোহাম্মদ তালুকদারের বাড়ির জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, মসজিদে আগুন দেওয়ায় পুড়ে গেছে মসজিদে রাখা পবিত্র কোরআন শরীফসহ অনেক ধর্মীয় বই। এ ঘটনায় আমিনুল তালুকদার ও হাফিজুল তালুকদারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ কোটালীপাড়া থানা-পুলিশ।

স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহানুর শেখ জানায়, মসজিদের জায়গা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দু'গ্রুপের মাঝে বিরোধ চলে আসছিল। মসজিদটি তারাশী গ্রামের মোহাম্মদ তালুকদারের ৮ছেলে মিলে নির্মাণ করেছেন। কিন্তু, এই জায়গা নিয়ে মোহাম্মদ তালুকদারের সাথে ভাই আহম্মদ তালুকদারের বিরোধ চলে আসছিল। তবে এই কাজ যারাই করে থাকুক না কেন তারা অত্যন্ত একটি জঘন্য কাজ করেছে।

মোহাম্মদ তালুকদারের ছেলে আমিনুল তালুদকার বলেন, রাত দেড়টার দিকে মসজিদে আগুন দেখতে পেয়ে আমি দৌড়ে মসজিদের কাছে যাই। তখন আমি ঘটনাস্থল থেকে আমার চাচা আহম্মদ তালুকদার ও টিপু তালুকদারকে দৌড়ে যেতে দেখেছি। আমার ধারণা তারাই মসজিদে আগুন দিয়েছে।

এ ব্যাপারে টিপু তালুকদার বলেন, বিরোধপূর্ণ জায়গায় আমার ভাতিজা আমিনুলরা মসজিদ নির্মাণ করেছে। এখন তারা অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটিয়ে আমাদের দোষারোপ করছে। আমরা এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটাইনি।

কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান বলেন, আল্লাহর ঘর মসজিদে যারা আগুন দেয় তারা মানুষ নয়, নরপিশাচ। ঘটনাটি শোনার সাথে সাথে আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি।

তিনি আরও জানান, সেখানে গিয়ে খোজ খবর নিয়ে জানতে পেরেছি যে, চাচাতো ভাইদেরকে ফাসানোর জন্যই গ্রেপ্তারকৃত দুই ভাই আমিনুল ও হাফিজুল নিজেদের মসজিদে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ধর্মীয় অনুভুতিতে আঘাত হানার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে।