ময়মনসিংহে দুই মরদেহ উদ্ধার

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে হেলাল উদ্দিন (৩৫) ও ভালুকা থেকে অজ্ঞাত এক পুরুষের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ধারণা করা হচ্ছে দুইজনকে হত্যার পর দুবৃত্তরা ফেলে রেখে গেছে। হেলাল উদ্দিন হত্যার ঘটনায় সুরুজ মিয়া নামে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে হালুয়াঘাটের জুগলী ইউনিয়নের সংড়া গ্রামে একটি ধানক্ষেতে গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় হেলালের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। অপরদিকে ভরাডোবা ক্লাবের বাজার এলাকা থেকে অজ্ঞাত মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত হেলাল উদ্দিন একজন বালু শ্রমিক। হেলাল উপজেলার সংড়া গ্রামের মৃত মাইন উদ্দিনের ছেলে। এছাড়া ভালুকায় উদ্ধারকৃত লাশের পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

হালুয়াঘাট থানার ওসি বিপ্লব কুমার বিশ্বাস বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মঙ্গলবার  রাত ১০টার দিকে উপজেলার জুগলী ইউনিয়নের সংড়া গ্রামে একটি ধানক্ষেতে গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় হেলালকে পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী। পরে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও জানান, নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সুরুজ মিয়া নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান তিনি।

ভরাডোবা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পুলিশ পরিদর্শক) উজায়ের আহমেদ আদনান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতের পরনে লুঙ্গি, গায়ে গাঢ় খয়ারি রঙের গেঞ্জি, মুখে কাঁচা-পাকা দাড়ি রয়েছে। পুলিশ বলেছে নিহতের মাথার বাম পাশে আঘাতের চিহ্ন ও বাম কানে রক্ত জমাট বেধে রয়েছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।