দুই দফায় ৫৬টি ডিম দিয়েছে দুই বাটাগুর বাসকা

সুন্দরবনের করমজল বন্যপ্রাণী প্রজনন কেন্দ্রে বিলুপ্ত প্রজাতির বাটাগুর বাসকার একটি মা কচ্ছপ গতকাল শুক্রবার (২৭ মার্চ) ২১টি ডিম দিয়েছে। এ নিয়ে চলতি মাসে দু'দফায় দুটি কচ্ছপ ৫৬টি ডিম পেড়েছে প্রজনন কেন্দ্রের পুকুর পাড়ে। এর আগে গত ১০ মার্চ প্রথমে ৩৫টি ডিম দেয় অপর একটি মা কচ্ছপ। ডিমগুলো সংরক্ষণ এবং বালুর ভেতরে ইনকিউবেশনে রাখা হয়েছে।


বিলুপ্ত প্রজাতির এ কচ্ছপ সংরক্ষণে ২০১৭ সালে সুন্দরবনের করমজলে চারটি পুরুষ ও চারটি স্ত্রী কচ্ছপ নিয়ে বাটাগুর বাসকার প্রজনন কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়। একই বছর দুটি কচ্ছপ ৬৩টি ডিম পাড়ে এবং ৫৭টি বাচ্চার জন্ম হয়। ২০১৮ সালে ৪৬ ডিম থেকে ২১টি বাচ্চার জন্ম হয়। ২০১৯ সালে একটি কচ্ছপ ৩২ ডিম পাড়ে ও ৩২টি বাচ্চা ফোটে।

সর্বশেষ শুক্রবার এবং ১০ মার্চ দু'দফায় প্রজনন কেন্দ্রের পুকুর পাড়ে দেওয়া কচ্ছপের ডিমগুলো উঠিয়ে বালুর ভেতরে ইনকিউবেশনে রাখা হয়েছে। আগামী ৬৫-৬৭ দিন পর এ ডিম থেকে বাচ্চা পাওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন কমরজল বন্যপ্রাণী কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আজাদ কবির। এ কেন্দ্রে ছোট-বড় মিলিয়ে ২৫২টি বাটাগুর বাসকা কচ্ছপ রয়েছে।