ঠাকুরগাঁওয়ে শিক্ষার্থীদের ভাড়া মওকুফ করলেন মেস মালিক

করোনাভাইরাসের মহামারীতে ঠাকুরগাঁও শহরে ৩৮ শিক্ষার্থীর ছয় মাসের ভাড়া মওকুফ করেছেন আব্দুল্লাহ আল মামুন নামে এক তরুণ মেস মালিক। এ ঘটনাকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছে ঠাকুরগাঁও জেলা প্রশাসন। 


বৃহস্পতিবার (৭ মে) বিকালে ওই মেস মালিক ফেইসবুকে মেস ভাড়া মওকুফের বিষয়টি জানান। 

জানা যায়, মেস মালিক মামুন শহরের কলেজপাড়া এলাকার বাসিন্দা। দেশের এই করোনা পরিস্থিতিতে মানবিক দিক বিবেচনা করে তিনি তাঁর মেসে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের ভাড়া মওকুফ করে দিয়েছেন। পাশাপাশি মওকুফের বিষয়ে একটি স্ট্যাটাসও দেন ওই মালিক। ফেইসবুকে তিনি লিখেছেন, 'এতদ্বারা ঠাকুরগাঁও কলেজপাড়ায় মামুন ছাত্রাবাস ও তাকিয়া ছাত্রী নিবাসের সকল ছাত্র-ছাত্রীর সংকটকালীন সময়ের রুমভাড়া সম্পূর্ণ মওকুফ করা হল।' তাঁর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেকেই। 

মেস মালিক মামুন বলেন, 'এই ৩৮ জন শিক্ষার্থীর পরিবার শ্রমজীবী, কৃষক ও দরিদ্র সাধারণ মানুষ। এই মেসে এমনও শিক্ষার্থী রয়েছেন যারা টিউশনি করিয়ে সংসার চালান। এসব বিষয় চিন্তা করে মে মাস থেকে আগামী ছয় মাস মেস ভাড়া মওকুফ করেছি।'

গতকাল দুপুরে মামুন ছাত্রাবাস ও তাকিয়া ছাত্রী নিবাসে খোঁজ নিতে গেলে সেখানকার শিক্ষার্থী রহমত আলী ও রফিকুল ইসলাম বলেন, 'আগামী ছয় মাস মেস ভাড়া নেবেন না বলে নোটিশ দিয়েছেন মামুন ভাই। এছাড়া তিনি আমাদের খাদ্য সহায়তাও দিয়েছেন। এতে আমরা খুব উপকৃত হয়েছি।'

আফসানা পারভীন নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ' মেস মালিক মামুন ভাই তাঁর দুটি মেসের ভাড়া মওকুফ করেছেন। এতে আমরা অনেক খুশি হয়েছি। তাঁর মত এলাকার সব বিত্তবানরা যদি এভাবে এগিয়ে আসতেন তাহলে শিক্ষার্থীরা উপকৃত হত।'

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসক কেএম কামরুজ্জামান সেলিম ও পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রদীপ কুমার মেস মালিক মামুনকে অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন। মেস মালিক মামুনের এই উদ্যোগ দেখে অন্যান্য বাসা মালিকরা শিক্ষা নিয়ে ও অনুপ্রাণিত হয়ে শিক্ষার্থীদের বাসা ভাড়া মওকুফ করবেন বলেও মনে করেন তারা। তারা মামুনের মত সবাইকে অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করেছেন।