নোয়াখালীতে প্রতিবেশীর ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা প্রতিবন্ধী তরুণী

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে বাক প্রতিবন্ধী তরুণীকে (২৩) ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে আটক করেছে চর জব্বর থানা পুলিশ। ধর্ষণের ফলে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে ওই তরুণী।

শুক্রবার (১৯ মার্চ) গ্রেপ্তারকৃতকে আদালতে তোলা হলে কারাগারে পাঠানোর অদেশ দেয় আদালত।

গ্রেপ্তারকৃত ফারুক হোসেন (৩০) সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের চর হাসান গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে। শুক্রবার ভোর রাতে চট্রগ্রামের রাঙ্গুনিয়া থেকে অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশ।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী তরুণীর মা বুধবার (১৭ মার্চ) বাদী হয়ে সুবর্ণচর থানায় মামলা দায়ের করেন।

চরজব্বর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো.ইব্রাহীম খলিল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আটক আসামিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভিকটিম একজন বাক প্রতিবন্ধী তরুণীর বাবাও প্রতিবন্ধী। তার মা মানুষের বাড়িতে কাজ করে সংসার চালায়। প্রতিবন্ধী মেয়ের সাথে গত ২ বছর পূর্বে নোয়াখালী চৌমুহনী এলাকার এক ব্যক্তির সাথে বিয়ে হয়। এখন স্বামী কোনো খোঁজ নেয় না। ধর্ষক ফারুক তাদের প্রতিবেশী হয়। কয়েক মাস আগে একদিন ভুক্তভোগী তরুণীর মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে ফারুক ভিকটিমের রান্না ঘরে ঢুকে জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। গত বুধবার (১৭ মার্চ) সকাল বেলা মেয়ে পেটের ব্যথায় কান্নাকাটি করলে তার মা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে, সে ইশারা ইঙ্গিতে তার পেটে বাচ্চা রয়েছে বলে জানায়। বাচ্চা কিভাবে আসল জিজ্ঞাসা করলে সে তার মাকে জানায় ফারুক তাকে ধর্ষণ করেছে। ভুক্তভোগীর পরিবার আল্ট্রাসনোগ্রাফি করালে জানতে পারে মেয়ে ২৪ দিনের গর্ভবতী।