ইসলামপুরে দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদের উদ্বোধন

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় অত্যাধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকাল দশটায় গণভবন থেকে ভিডিও কন্ফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় নির্মাণাধীন ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের মধ্যে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রথম পর্যায়ে ৫০টি মডেল মসজিদ ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের অংশ হিসেবে এ উপজেলায় মডেল মসজিদটির শুভ উদ্বোধন করেন।

গণভবন থেকে সম্প্রচারিত ওই ভার্চয়াল উদ্ভোধনীয় অনুষ্ঠানে ইসলামপুর পৌর শহরে মির্মিত মডেল মসজিদের মিলনায়তনে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট এস. এম. জামাল আব্দুন নাছের বাবুল, পৌর মেয়র আব্দুল কাদের সেখ, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস. এম. মাজহারুল ইসলাম প্রমুখ। মসজিদ উদ্ভোধনীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিডিও কন্ফারেন্সে অংশ নেন বিভিন্ন স্তরের লোকজন।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলাসহ বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু এখন দ্বিতল অত্যাধুনিক ও দৃষ্টিনন্দন মডেল মসজিদটি। সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু ছিল উদ্ভোধন আর নামাজের জন্য দ্বার উন্মোচনের। শেখ হাসিনা হেলথ্ টেকনোলজি ও ইসলামপুর পৌর ভবনের পার্শ্বে নান্দনিক ওই মসজিদটির নির্মাণ করা হয়েছে।

উপজেলার উন্নয়নের লক্ষ্যে জামালপুর-২ ইসলামপুর আসনের এমপি ধর্ম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফরিদুল হক খান দুলালের প্রচেষ্টায় নান্দনিক এই মসজিদটির নির্মাণ করা হয়।

স্থানীয় দরিয়াবাদ সেবা সংগঠনের সভাপতি মো. সাজু মিয়া জানান, এই রকম মসজিদ এখানে হবে এটা প্রথমে ভাবতেই পারিনি। তবে এতো সুন্দর মসজিদটি নির্মাণ করায় বেশ ভালো লাগছে।

জানা যায়, প্রায় ১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত অত্যাধুনিক এই মডেল মসজিদে থাকছে এক সাথে ৮ হাজার মানুষের নামাজ পড়ার ব্যবস্থার পাশাপাশি ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র। নারী ও পুরুষের জন্য রয়েছে পৃথক পৃথক অজুর স্থান, লাইব্রেরি ও গবেষণা কেন্দ্র। আরও থাকছে শিশু শিক্ষা, হজযাত্রীদের নিবন্ধনকেন্দ্রসহ ইমামদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা। এছাড়াও মসজিদের আন্ডার গ্রাউন্ডে রয়েছে বিশাল পার্কিং ব্যবস্থা ।  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী সরকারি অর্থায়নে ৮ হাজার ৭২২ কোটি টাকা ব্যয়ে পর্যায়ক্রমে দেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণ করা হবে। এর অংশ হিসেবে এ উপজেলায় মডেল মসজিদটি নির্মাণ করা হয়।