হাতীবান্ধায় অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে পরকীয়ার অভিযোগ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা উপজেলায় জাহিদুল হোসেন দুলু নামে এক কলেজ অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে পরকীয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি উপজেলার বড়খাতা টেকনিক্যাল এন্ড বি,এম কলেজের অধ্যক্ষ।

এ ঘটনায় গত বুধবার (২৮ জুলাই) অসহায় স্বামী রাশেদ মেনন বিদুৎ এর প্রতিকার চেয়ে হাতীবান্ধা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযুক্ত জাহিদুল হোসেন দুলু উপজেলার বড়খাতা এলাকার নাজির হোসেনের ছেলে।
 
জানাগেছে, ২০০৮ সালে মরিয়ম আক্তার লাকির সাথে বিয়ে হয় রাশেদ মেনন বিদুতের। বর্তমানে তাদের তিনটি কন্যা সন্তান রয়েছে। সংসার চালাতে হিমশিম খাওয়ায় বিদুৎ নিজ এলাকার বাহিরে কাজ করতেন। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে জাহিদুল হোসেন দুলু ও মরিয়ম আক্তার লাকির সাথে পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। এমন অবস্থায় গত ২৫ জুলাই বিদুৎ বাড়িতে না থাকায় দুলু লাকির সাথে দেখা করতে যায়। স্থানীয়রা বিষয়টি বুঝতে পারলে দুলু বিদুতের বাড়ি থেকে ছটকে পরেন। এ ঘটনায় এলাকার স্থানীয়দের মধ্যে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী অসহায় স্বামী রাশেদ মেনন বিদুৎ বলেন, আমার সবকিছু শেষ। জাহিদ হোসেন দুলুর সাথে আমার স্ত্রী লাকির পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক। বিষয়টি এলাকার সকল মানুষ জানে। তাই এর প্রতিকার চেয়ে থানায় অভিযোগ করেছি। আমি এর সঠিক বিচার চাই।

এ বিষয়ে বড়খাতা টেকনিক্যাল এন্ড বি,এম কলেজের অধ্যক্ষ জাহিদুল হোসেন দুলু বলেন, স্বামী স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হয়েছিলো আমি তা মিমাংসা করে দেই। সেই সুবাদে লাকির সাথে ফোনে কথা বলতাম, আর কিছু না।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার এসআই ইব্রাহিম বলেন, অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত চলছে।