ভাসানচর থেকে পালানো ২৫ রোহিঙ্গা সুবর্ণচরে আটক

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালিয়ে চট্রগ্রাম ও কক্সবাজার যাওয়ার পথে ২৫ রোহিঙ্গা নারী-পুরুষকে আটক করেছে নোয়াখালীর সুবর্ণচরের স্থানীয় এলাকাবাসী।

বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) সকালে উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলো, রশীদ উল্যাহ (২৫) আনোয়ারা (২২) মো.আমিন (৩) মো.সৈয়দ আমিন (১০ মাস), সেফায়েত উল্যাহ (৩০), হাসিনা বেগম (২৬), মো.নয়ন (১২) ,জান্নাতুল ফেরদৌস (৮),সুমাইয়া (৫), নূর মোহাম্মদ (২০), খালেদা (১৮), মো.ইলিয়াছ (৬মাস) ,মো.জোবায়ের (২০), ফাতেমা (১৯), ছাদিয়া (৪), মো.জাবেদ (১) ,একরাম উল্যাহ (৩০) ,ফাতেমা (২৫) ,রহমত (৪) ,আসমা (২), আশেয়া বেগম (২৫) ,পারভিন আক্তার (৯) ,মো.হাসান (৪) ,উম্মে কুলসুম (২০) ,ফাতেমা খাতুন (৫০)।

চরজব্বর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এস.এম মিজানুর রহমান তথ্য নিশ্চিত করে জানান, আটককৃতদের মধ্যে ১০ জন শিশু রয়েছে। আজই তাদের ভাসানচরের উদ্দেশে পাঠানো হবে।

পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান আরো জানান, বুধবার দিবাগত রাতে ১০ জন শিশুসহ ২৫ জন রোহিঙ্গা ভাসানচর ক্যাম্প থেকে পালিয়ে দালালের সহযোগিতায় চট্রগ্রাম ও কক্সবাজারের উদ্দেশে রওনা হয়। যাত্রা পথে সুবর্ণচর উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়ন এলাকায় পৌঁছালে দালাল ও নৌকার মাঝিরা কৌশলে নামিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। বৃহস্পতিবার সকালে স্থানীয়র  রোহিঙ্গাদের দেখতে পেয়ে পুলিশকে জানায়।

খবর পেয়ে চরজব্বর থানার পুলিশ ও সুবর্ণচর উপজেলা নির্বহী কর্মকর্তা (ইউএনও) চৈতী সর্ববিদ্যা ঘটনাস্থলে গিয়ে রোহিঙ্গাদের পুলিশ হেফাজতে নিয়ে আসে।

সুবর্ণচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) চৈতী সর্ববিদ্যা জানান, আটককৃত ২৫ রোহিঙ্গাকে চরজব্বর থানার পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। ভাসারচর আশ্রয়ণ কেন্দ্রের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে কথা হয়েছে। কোস্টগার্ড সদস্যরা সুবর্ণচর এসে ২৫ রোহিঙ্গাকে ভাসানচর আশ্রয়ণ কেন্দ্রে নিয়ে যাবে।