মোমিন রাজাকারের ফাঁসি, বগুড়ায় মিষ্টি বিতরণ

বগুড়া-৩ আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া আসনে বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য পলাতক আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন মামলায় মৃত্যুদণ্ডের রায় প্রদান করায় তার নিজ এলাকায় আনন্দ র‌্যালি ও মিষ্টি বিতরণ হয়েছে।

বুধবার দুপুর ১২টায় আদমদীঘি উপজেলার সান্তাহার পৌর আ’লীগের উদ্যোগে দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি আনন্দ র‌্যালি বের করে শহরের বিশেষ বিশেষ সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ সময় ‘এই মাত্র খবর এলো, খোকা রাজাকারের ফাঁসির রায় এলো’ ¯স্লোগান দেন নেতারা।

মিছিলে যোগ দেন মামলার সাক্ষী আবুল কালাম আজাদ, কিনা মিয়া, বগুড়ার জেলা আ’লীগের সদস্য আশরাফুল ইসলাম মন্টু, সান্তাহার পৌর আ’লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, সাধারণ সম্পাদক এসএম জাহিদুল বারী, উপজেলা আ’লীগ যুগ্মসম্পাদক নিসরুল হামিদ ফুতু, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ আহসান পিয়াল, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী, আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ন কবির বাদশা, প্রদীপ ভৌমিক, নাহিদ সুলতানা তৃপ্তি, যুবলীগ সভাপতি শাহিনুর রহমান মন্টি, স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি ফিরোজ হোসেন চন্দন, ছাত্রলীগ নেতা মারুফ হাসান রবিন, তানভী রহমান তনু প্রমুখ। পরে সাধারণ মানুষের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধকালে মানবতাবিরোধী অপরাধে আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকার বিরুদ্ধে ১৯জনকে হত্যা ও গণহত্যা এবং ১৯টি বাড়ী লুট করে অগ্নিসংযোগের অভিযোগ আনা হয়। ২০১৬ সালের ১৮ জানুয়ারি তার বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। পরের বছর ১৮ মে তার বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করা হয়। ২০১৮ সালের ৩ মে এই আসামির বিরুদ্ধে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। ২০১৯ সালের ১১ এপ্রিল তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন আদালত। একই সালের ২৩ মে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়। মোট ১৫ জন সাক্ষী এ মামলায় সাক্ষ্য দেন। বুধবার বিচারপতি মোঃ শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ট্রাইব্যুনাল মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন।