নরসিংদী সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

নরসিংদীতে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পরাজয় নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেওয়াকে কেন্দ্র করে মাঈনুদ্দীন সওদাগর নামের এক যুবলীগ কর্মীকে নিজ বাড়িতে ডেকে নিয়ে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে সদর উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। 


এ ঘটনায় সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদর থানা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আফতাব উদ্দিন ভূইয়ার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে যুবলীগ কর্মী মাঈনুদ্দীন সওদাগর বাদী হয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ভূইয়াসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে এ মামলা দায়ের করেন।

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ২৮ নভেম্বর নরসিংদী সদর উপজেলার ১০টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ৯টি ইউনিয়নেই নৌকা প্রতীকের প্রার্থীরা বিপুল ভোটের ব্যবধানে বিজয়ী হলেও নৌকার ভরাডুবি হয় উপজেলা চেয়ারম্যান ও সদর থানা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আফতাব উদ্দিন ভূইয়ার নিজ ইউনিয়ন চিনিশপুরে। তিনি আশেপাশের বিভিন্ন ইউনিয়নের নির্বাচনী সভায় গেলেও নিজ ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর পক্ষে কোনো সভায় অংশ নেননি বলে জানা যায়। উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ভূইয়ার মদদেই চিনিশপুর ইউনিয়নে নৌকা পরাজিত হয়েছে বলে জেলাজুড়ে নানা আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠে। নৌকার এই পরাজয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে যুবলীগ কর্মী মামলার বাদী মাঈনুদ্দিন সওদাগর ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেয়।


অভিযোগ, এ স্ট্যাটাসে ক্ষুব্ধ হয়ে গত ৩০ নভেম্বর মামলার বাদী যুবলীগ কর্মী মাঈনুদ্দীন সওদাগরকে নিজ বাড়িতে ডেকে এনে পিটিয়েছেন উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ভূইয়া এবং তার সহযোগী সোহেল আহমেদ সবুজ ও কাদির মিয়া। পাশাপাশি মামলার বাদীর বাড়িঘর জ্বালিয়ে দিয়ে এলাকা ছাড়া করাসহ হত্যার হুমকিও দেয়া হয়। 


এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন ভূইয়ার সংগে মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।