তত্ত্বাবধায়ক ছাড়া নির্বাচন হবে না, হুঁশিয়ারি প্রিন্সের

আওয়ামী লীগের অধীনে নয়, তত্ত্বাবধায়ক ছাড়া নির্বাচন হবে না বলেও সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।


২০ নভেম্বর, রবিবার দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে হালুয়াঘাট উপজেলা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠন আয়োজিত দোয়া ও অসহায় নারী পুরুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।তিনি বলেন, অবাধ, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের স্বার্থে আওয়ামী লীগ সরকারের পদত্যাগ ও সংসদ বাতিলপূর্বক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন আজ সময়ের দাবি।



আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের সমালোচনা করে প্রিন্স বলেন, বিএনপি জনগণের রায় নিয়ে ক্ষমতায় যেতে চায়। কিন্তু আওয়ামী লীগের অধীনে জনগণ স্বাধীন রায় দিতে পারে না। এটা আজ জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত।


তিনি বলেন, শেখ হাসিনাও বিরোধী দলে থাকতে চিরদিনের জন্য তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন চেয়েছিলেন। কিন্তু উনি এখন বিরোধিতা করছেন।এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, গরীব, দুঃখী ও অসহায় মানুষের প্রতি সরকারের কোনও নজর নাই। তীব্র অর্থনৈতিক সঙ্কটের মধ্যেও তেল, চিনি, আটা ও ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের পুনরায় মূল্যবৃদ্ধি মরার ওপর খাঁড়ার ঘা। অথচ পরিকল্পনা মন্ত্রী বলছেন, কোনো কিছুই নাকি গরীব মানুষের নাগালের বাইরে নয়। জনগণকে কচুরিপানা খাওয়ার আহ্বানকারী মন্ত্রীরা বাস্তবতা ও নিজেদের আড়াল করতে মিথ্যাচার করছে। সরকারের মিথ্যা আত্ম অহমিকা এবং দুর্নীতি, লুটপাট, ভ্রান্তনীতি ও অপরিণামদর্শী সিদ্ধান্তের কারণে দেশের এই বেহাল অবস্থা।


তিনি বলেন, জনভোগান্তি, দুর্নীতি-লুটপাট ও নিত্যপণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধি, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, নির্বাচনকালীন তত্ত্বাবায়ক সকরকারের দাবিতে চলমান আন্দোলনে গণজোয়ার দমন করতে সরকার হত্যা, নির্যাতন, গায়েবী মামলা, গ্রেফতার করছে।


বিএনপির এই সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, সরকার হয়তো ক্ষমতার মোহে ভুলে গেছে গুলি করে লাশ ফেলে বা মিথ্যা মামলা দিয়ে গ্রেফতার ও হয়রানী করে জনতার আন্দোলন দমন করা যায় না। অতীতে কেউ পারে নাই। আওয়ামী সরকারও টিকে থাকতে পারবে না।


তারেক রহমানকে জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি বলেন, তারেক রহমান বাংলাদেশের রাজনীতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। সাবেক প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সন্তানকে কোন ষড়যন্ত্র এবং চক্রান্ত করে রাজনীতি ও জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন রাখা যাবে না। তারেক রহমানের নেতৃত্বেই দেশে গণতন্ত্র পুন:প্রতিষ্ঠিত হবে।


হালুয়াঘাট পৌর শহরের উত্তর খয়রাকুড়ি অগ্রযাত্রা কনভেনশন সেন্টার সংলগ্ন মাঠে তারেক রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্য উপজেলের উত্তরাঞ্চলের পাঁচ ইউনিয়ন ও পৌরসভার ছয় শতাধিক অসহায় প্রতিবন্ধী নারী-পুরুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়।


অনুষ্ঠানে ময়মনসিংহ উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক এনায়েত উল্লাহ কালাম, জেলা বিএনপির সদস্য আসলাম মিয়া বাবুল, বীরমুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক আমজাদ আলী, হানিফ মো. শাকের উল্লাহ, আবু হাসনাত বদরুল কবির, আরফান আলী, আবদুল হামিদ, আলী আশরাফ, আলমগীর আলম বিপ্লব, হালুয়াঘাট উপজেলা বিএনপি নেতা আবদুল হাই, নাদিম আহম্মদ, মিজানুর রহমান মিজান, উত্তর জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি আবদুল আজিজ খান, জেলা মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদিকা হোসনে আরা নীলু, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান আসিফ, স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম সম্পাদক রুহুল আমিন খান, শ্রমিক দলের বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল গণি, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক নাইমুর আরেফিন পাপন, পৌর ছাত্রদলের সদস্য সচিব, তাজবীর হোসেন অন্তর, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব আলিমুল ইসলাম, পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান দুলাল, সদস্য সচিব আসাদুজ্জামান সুজন, উপজেলা তাঁতী দলের আহ্বায়ক আকিকুল ইসলাম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।