কিউইদের মাটিতে নামাল ইংল্যান্ড

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থ টি-২০ তে নিউজিল্যান্ডকে ৭৬ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। ২৪২ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে কিউইরা অলআউট হয়েছে মাত্র ১৬৫ রানে। এর ফলে সিরিজে ২-২ এ সমতা এসেছে।

আগে ব্যাট করে ইয়ন মরগানের ৯১ আর ডেভিড মালানের সেঞ্চুরিতে ভর করে ৩ উইকেটে ২৪১ রান তুলে ইংল্যান্ড। জবাবে ম্যাথু পারকিনসনের বলে দিশেহারা হয়ে মাত্র ১৬৫ রানে গুটিয়ে যায় নিউজিল্যান্ড।

আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি ইংল্যান্ডের। দলীয় ১৬ রানের মাথায় ব্যক্তিগত ৯ রান করে বিদায় নেন জনি বেয়ারস্টো। এরপর ডেভিড মালানকে নিয়ে জুটি গড়ার চেষ্টা করেন বোল্টন। তবে অষ্টম ওভারে ২০ বলে ৩১ রান করা বোল্টনকে ফেরান সান্টেনার।

এরপর মাঠে আসেন ইয়ন মরগান। আর তিনি আসতেই শুরু হয় ঝড়। দুইজন মিলে তৃতীয় উইকেটে ৭৪ বলে যোগ করেন ১৮২ রান। এর মধ্যে ইশ সোধির এক ওভারে আসে ২৮ রান। ড্যারেল মিচেলের এক ওভারে আসে আরও ২৫ রান।

ইনিংস শেষ হওয়ার ২ বল আগে টিম সাউদির শিকার হন মরগান। তবে ততক্ষণে হয়ে যায় ২৪০ রান। শেষ ২ বলে মাত্র ১ রান আসে।

ডেভিড মালান ৫১ বলে ৯ চার আর ৬ ছয়ে করেন ১০৩ আর ইয়ন মরগান ৪১ বলে ৭ চার আর ৭ ছয়ে করেছেন ৯১ রান। সান্টেনার ৪ ওভারে ৩২ রান দিয়ে নেন ২ উইকেট।

ম্যাচে মোট ছয় হয়েছে ১৬টি আর চার ২১টি। ইশ সোধি মাত্র ৩ ওভারে দিয়েছেন ৪৯ রান।

বিশাল টার্গেটে খেলতে নেমে দারুণ শুরু পায় কিউইরা। মার্টিন গাপটিল আর কলিন মুনরো ৪ ওভারেই তুলে নেন ৫০। তবে পঞ্চম ওভারে এসে টম কারানের শিকার হন গাপটিল। এর আগে ১৪ বলে করেন ২৭ রান।

গাপটিল আউট হতেই তাসের মতো ভেঙে পড়ে কিউইরা। ৩ রান করে সেইফর্ট, ৭ রান করে গ্রান্ডহোম, ১৪ রান করে রস টেলর আর ৩০ রান করে বিদায় নেন মুনরো। তাতে ৭৮ রানেই চলে যায় ৫ উইকেট। ফলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় নিউজিল্যান্ড।

এরপর টিম সাউদির ১৫ বলে ৩৯ রানের ইনিংসে শুধু ব্যবধানটাই কমেছে। শেষ পর্যন্ত ১৯ বল বাকি থাকতেই তারা অলআউট হয় ১৬৫ রানে।

ম্যাথু পারকিনসন ৪ ওভারে ৪৭ রানে চারটি আর ক্রিস জর্ডান ২.৫ ওভারে ২৪ রান দিয়ে দুই উইকেট নেন।