সৌম্যর বিয়েতে একের পর এক মোবাইল চুরি, অতঃপর..

সৌম্য সরকারের বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে মোবাইল চুরির ঘটনা ঘটেছে। যা নিয়ে বিয়ের মাঝেই বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ এসে অবস্থা নিয়ন্ত্রণে আনে।

জানা গিয়েছে, সৌম্যর বাবা কিশোরী মোহন সরকার, বরযাত্রী শিল্পপতি দ্বীনবন্ধু মিত্র ও সৌম্যর আরেক বন্ধুসহ একাধিক আত্মীয়ের মোট সাতটি মোবাইল চুরি হয় বিয়ের আসর থেকে। সৌম্যর মেজো ভাই প্রনব সরকার খুলনা ক্লাবের কর্মচারীদের মোবাইল চুরির বিষয়ে জানান। ক্লাবের কয়েকজন কর্মচারী সেই সময় ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

সৌম্য তখন সাত পাকে ঘোরার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন। কিন্তু ঝামেলার জন্য প্রায় আধ ঘণ্টা পিছিয়ে যায় বিয়ের আচার-অনুষ্ঠান। সৌম্যর বাড়ির লোকজন দাবি করেছেন, তাঁরা চোরদের হাতেনাতে ধরে ফেলেছিলেন। আর সেই জন্যই খুলনা ক্লাবের কর্মচারীরা তাঁদের উপর হামলা চালায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, চুরি যাওয়া মোবাইলের নম্বরে কল করলে একজনের পকেটে সেটি বেজে ওঠে। তখন সেই চোরের কাছ থেকে আরও পাঁচটি মোবাইল উদ্ধার করা হয়। তাঁকে হাতেনাতে ধরার পরই অশান্তি শুরু হয়। খুলনা ক্লাবের স্টাফ ও বরযাত্রীদের মধ্যে ব্যাপক গণ্ডগোল বেধে যায়।

যদিও খুলনা থানার ওসি বলেছেন, ঝামেলা হলেও হাতাহাতির কোনও ঘটনা ঘটেনি।