নেপালের সানি লিওন তিনি

নেপালের প্রাপ্তবয়স্ক অভিনেত্রী অর্চনা পানেরু। যার বয়স মাত্র ২০। ইতোমধ্যেই তিনি ‘নেপালের সানি লিওন’ নামে পরিচিতি পেয়ে গেছেন। বেশ কয়েকটি ছবিতে কাজ করা এই অভিনেত্রীর ছবি প্রায়ই ভাইরাল হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

অর্চনা স্কুলে পড়াশোনা করেছেন মাত্র নবম শ্রেণি পর্যন্ত এবং পরে একটি প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। ২০১৫ সালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার মনমুগ্ধকর ছবি পোস্ট করা শুরু করার পর তিনি হঠাৎ স্টার বনে যান। আসতে থাকে একের পর এক ছবির প্রস্তাব।

অর্চনা নিজেই বলেন যে সানি লিওন তার রোল মডেল। ২০০০ সালে নেপাল স্থানান্তরিত হওয়ার আগে অর্চনার মা সুনিতা বহু বছর ধরে ভারতে কাজ করেছেন। আপত্তিজনক ছবি পোস্ট করার অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এফআইআর দায়েরের অর্চনা পানেরু এবং তার মাকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছিল।

তাঁর সাহসী ছবিগুলির জন্য জনপ্রিয়তা অর্জনের পরে অর্চনা এবং তার মা হিন্দু থেকে খ্রিস্টান রূপান্তরিত হয়েছিলেন। একটি সংগীত ভিডিও অ্যালবাম দিয়ে কেরিয়ার শুরু করেছিলেন নেপালি মেয়ে অর্চনা পানেরু, চলচ্চিত্র ‘জিসম’ দিয়ে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন। একটি প্রতিবেদন অনুসারে, অর্চনা পানেরুর আসল নাম কল্পনা পানেরু। একটি সাক্ষাত্কারে অর্চনা বলেছিলেন যে ভবিষ্যতে তিনি নৃত্যশিল্পী এবং ডিজাইনার হতে চান।