ভাষাসৈনিক রওশন আরা আর নেই

রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলায় মেয়েদের যে মিছিল পুলিশের ব্যারিকেডে ভেঙেছিল, সেই মিছিলের মুখ রওশন আরা বাচ্চু আর নেই।

মঙ্গলবার (৩ ডিসেম্বর) রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

জানাগেছে, বেশ কদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন তিনি। অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। ভোর সাড়ে ৩টার দিকে তিনি মারা যান।

মৌলভীবাজার জেলা কুলাউড়া থানার উছলাপাড়া গ্রামে ১৯৩২ সালের ১৭ই ডিসেম্বর রওশন আরা বাচ্চুর জন্ম। ১৯৫২’র ভাষা আন্দোলনে একজন সক্রিয় কর্মী ছিলেন রওশন আরা। পিরোজপুর গার্লস স্কুল থেকে ম্যাট্রিক, বরিশালের ব্রজমোহন কলেজ থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করে ১৯৫৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে অনার্স ও পরে ইতিহাসে এমএ পাস করেন তিনি।

একুশে ফেব্রুয়ারিতে যে ছাত্রনেতারা ১৪৪ ধারা ভাঙতে চেয়েছিলেন তিনি ছিলেন তাদের অন্যতম। সেদিন তার নেতৃত্বেই ইডেন মহিলা কলেজ এবং বাংলাবাজার বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আমতলায় সমাবেশস্থলে সমবেত হয়। ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করতে গিয়ে তিনি পুলিশের লাঠিচার্জে মারাত্মক আহত হয়েছিলেন। কর্মজীবনে তিনি ঢাকার আনন্দময়ী স্কুল, লিটল এ্যঞ্জেলস, আজিমপুর গার্লস স্কুল, নজরুল একাডেমি এবং আলেমা একাডেমিতে শিক্ষকতা করেন।

বাংলা একাডেমির জনসংযোগ কর্মকর্তা পিয়াস মজিদ জানিয়েছেন, শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য রওশন আরা বাচ্চুর মরদেহ মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বাংলা একাডেমিতে নিয়ে যাওয়া হবে।

পরে তার কফিন নিয়ে যাওয়া হবে রাজধানীর পশ্চিম মণিপুরের বাসায়। আসরের পর জানাজা শেষে তার মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে গ্রামের বাড়ি কুলাউড়ায়। সেখানে রাতেই তাকে দাফন করা হবে বলে জানান মেয়ে তাহমিদা।