পদ্মায় তীব্র স্রোত: ফেরি পারাপার ব্যাহত

নদীতে অব্যাহত পানি বৃদ্ধি, তীব্র স্রোতের কারণে পাটুরিয়া দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল মারাত্মকভাবে ব্যাহত হওয়ায় পাটুরিয়া ঘাটের যানজট অব্যাহত রয়েছে। একই অবস্থা মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌপথেও।

বুধবার দিবাগত রাতে আসা যাত্রীবাহী কোচগুলো বৃহস্পতিবার দুপুরে নদী পার হয়েছে। ফলে পাটুরিয়া ঘাটে পাঁচ শতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক এবং শতাধিক রাতের কোচ ফেরি পারাপারের অপেক্ষায় আছে।

তীব্র স্রোতের কারণে মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ি ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌপথে ১৮টি ফেরির মধ্যে চলছে মাত্র ৩টি রো রো ফেরি। চাহিদা অনুপাতে ফেরি চলাচল কম থাকায় ঘাটের দুপারে আটকা পড়েছে শত শত যানবাহন।

বিআইডব্লিউটিসি আরিচা অঞ্চলের উপমহাব্যবস্থাপক আজমল হোসেন বলেন, তীব্র স্রোতের কারণে ফেরি পারাপারে সময় লাগছে স্বাভাবিক সময়ের চেয়ে দ্বিগুন। পাটুরিয়া থেকে দৌলতদিয়াগামী ফেরি স্রোতের কারণে ৩ কিলোমিটার ভাটিতে চলে যাচ্ছে। আবার ৩ কিলোমিটার উজান বেয়ে ফেরিটিকে দৌলতদিয়া যেতে হচ্ছে। এতে করে ফেরি পারে সময় লাগছে এক ঘন্টারও বেশী।

তিনি বলেন, ১৫টি ফেরির মধ্যে ৩টি ফেরি বিকল থাকায় ১২টি ফেরি দিয়ে গাড়ী পারাপার করা হচ্ছে। ফলে বিপুল সংখ্যক গাড়ি পাটুরিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় আছে। তবে এই সংকট মোকাবেলায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে পাটুরিয়া দৌলতদিয়া নৌপথের জন্য আরো দুটি ফেরি চাওয়া হয়েছে। বিকল ফেরিগুলি পাটুরিয়া ভাসমান কারখানায় মেরামতে আছে। সেগুলি দ্রুত ফেরি বহরে যুক্ত হবে এবং কয়েকদিনের মধ্যেই দুটি ফেরি এই রুটে যুক্ত হতে পারে।

কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে দেখা যায়, ঘাটের দেড় কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ সারি। চারটি ঘাটের সংযোগ সড়কে সারি ধরে পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে যানবাহনগুলো। টার্মিনালগুলোও যানবাহনে ভরা। সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন পণ্যবাহী ট্রাকের চালকেরা। ব্যক্তিগত যানবাহন ও যাত্রীবাহী বাসগুলোও ঘণ্টার পর ঘণ্টা আটকে রয়েছে। আর প্রতিটি ঘাটের পাশেই নোঙর করে রাখা হয়েছে ফেরিগুলো।

মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাম হোসেন বলেন, ঘাটের অবস্থা খুবই খারাপ। তীব্র স্রোতের কারণে আমরা ফেরি চালাতে পারছি না। ঘাট সচল রাখতে কোনো রকমভাবে তিনটি রো রো ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করছি। চলাচলরত ফেরিগুলোও দ্বিগুণ সময় নিয়ে পদ্মা পার হচ্ছে। স্রোতের তীব্রতা না কমলে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক করা সম্ভব হচ্ছে না।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম সাংবাদিকদের বলেন, যানজট এড়াতে এবং যাত্রীসাধারণের সুবিধার্থে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বাস ও ছোট গাড়ী পারাপার করা হচ্ছে। ট্রাক টার্মিনালে এবং ঢাকা পাটুরিয়া মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে ট্রাক আটকে রাখা হয়েছে। গত ৩ দিন ধরে ট্রাক পারাপার বন্ধ রাখা হয়েছে। এখনও ট্রাক আসছে। ফলে সমস্যা আরো বাড়ছে।