প্রিয়া ইস্যুতে আমরা রয়ে-সয়ে অগ্রসর হচ্ছি: কাদের

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রিয়া সাহার বক্তব্যের পেছনে অন্যকারও হাত আছে কি না, আমরা খতিয়ে দেখছি। তিনি যখন দেশে ফিরবেন, দেশের বিরুদ্ধে কী বলেছেন তখন সেবিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

সোমবার (২২ জুলাই) সচিবালয়ে সাম্প্রতিক বিষয়ে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন। 

তিনি বলেন, এ ইস্যুতে আমরা রয়ে-সয়ে অগ্রসর হচ্ছি। কারণ মশা মারতে আমরা কামান ব্যবহার করতে চাই না।

প্রসঙ্গত, ধর্মীয় স্বাধীনতা নিয়ে ওয়াশিংটনে আয়োজিত এক সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে গত ১৭ জুলাই হোয়াইট হাউজে যান প্রিয়া।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে তিনি বলেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় সংখ্যালঘুরা মৌলবাদীদের নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন। প্রায় ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান নিখোঁজ (ডিজঅ্যাপিয়ার্ড) হয়েছেন।’ তার ওই বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় দেশের বিভিন্ন মহলে।

শেখ হাসিনার বক্তব্যে অনুপ্রাণিত হয়ে ওই বক্তব্য দিয়েছন প্রিয়া সাহার এমন দাবি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, শেখ হাসিনার বক্তব্যেতো ৩ কোটি ৭০ লাখ লোকের মিসিংয়ের কথা নেই। শেখ হাসিনা এরকম কোন কথা বলতে পারেন না। আমার মনে হয়, এটা প্রিয়া সাহা যা করেছে, তা আমাদের দেশকে ছোট করা। এটা কাল্পনিক, অসত্য এবং উদ্দেশ্য প্রণোদিত বক্তব্য। 

কাদের বলেন, উনি (প্রিয়া সাহা) নিজেই বলেছেন দেশে ফিরে আসবেন। এটা এমন কোন বিষয় নয় যে তাকে জোর করে দেশে ফিরিয়ে আনতে হবে। এরকম কিছু আমরা পাইনি। আমরা খতিয়ে দেখছি, সেরকম কিছু হলে আমরা দেখবো। সবকিছু জেনে-শুনে আমরা সিদ্ধান্ত নিতে চাই।

প্রিয়া সাহার সাথে দুদকে চাকরি করা তার স্বামীর কোন যোগসাজশ আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, দেখুন ওনার স্বামী সরকারি চাকরি করেন। এক পরিবারে স্বামী-স্ত্রী এবং সন্তানসহ সবাই থাকেন। এখন একজন অপরাধ করলে সবাই শাস্তি পাবেন, এটাতো কোন কথা নয়।