সেনাবাহিনীর গাড়িতে গুলি, পাল্টা জবাবে নিহত কসাই সুমন

রাঙামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার আসামি সুমন চাকমা সেনা সদস্যদের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধ নিহত হয়েছেন।

সেনাবাহিনীর গাড়িতে সন্ত্রাসীদের গুলিবর্ষণের পর সেনাবাহিনীর পাল্টা গুলিতে সুমন চাকমা নিহত হয়। শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার বাঘাইহাট উজু বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

তবে ইউপিডিএফ দাবি করেছে, তাদের সাবেক এই কর্মীকে ‘বিনা উস্কানিতে গুলি করে হত্যা’ করা হয়েছে।

নিহত সুমন চাকমা বাঘাইহাট-সাজেক এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী ও ইউপিডিএফ (প্রসীত খীসা) পক্ষের সদস্য। তিনি নানিয়ারচর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার অন্যতম আসামি।

রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ছুফিউল্লাহ বলেন, শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে বাঘাইছড়ি উপজেলার সীমানাছড়া এলাকায় উজোবাজারে দুই দল সশস্ত্র সন্ত্রাসীর বন্দুকযুদ্ধের খবর পেয়ে সেনাবাহিনীর একটি টহলদল সেখানে যায়। এ সময় সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীর গাড়ি লক্ষ করে গুলি করে। একটি গুলিতে গাড়ির কাচ এবং আরেকটি গুলিতে গাড়ির বডি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

তিনি বলেন, সেনাসদস্যরা পাল্টা গুলি ছুড়লে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে সেখান থেকে সুমন চাকমা ওরফে কসাই সুমন নামে এক সন্ত্রাসীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি ইউপিডিএফের জেলা সংগঠক অংগ্য মারমা বলেন, “নিহত সুমন আমাদের সাবেক কর্মী। তাকে বিনা কারণে, বিনা উস্কানিতে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।