ঈদযাত্রায় পথে পথে ভোগান্তি

আজ থেকে শুরু হয়েছে কোরবানি ঈদের ছুটি। যে কারণে মহাসড়কে আজ ঘরে ফেরা মানুষের চাপ বেড়েছে। তবে ঈদযাত্রার প্রথম দিনেই দেশের বিভিন্ন মহাসড়কে সৃষ্টি হয়েছে যানজটের। যে কারণে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

শুক্রবার (৯ আগস্ট) সকাল থেকেই ঘরে ফেরা মানুষের চাপ বাড়তে থাকে। সেই সাথে বাড়ছে যানজটও। যদিও সড়ক পরিবহন মন্ত্রী দাবি করেছেন মহাসড়কে কোনো যানজট নেই।

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে সিরাজগঞ্জ অংশে অতিরিক্ত যানবাহনের চাপের ফলে গাড়ি টানতে পারছেন না চালকরা। ফলে বঙ্গবন্ধু সেতুর টোল আদায় বন্ধ করে দিয়েছে সেতু কর্তৃপক্ষ। শুক্রবার বেলা ১১টা ৪৮ মিনিট থেকে টোল আদায় বন্ধ করে দেয়া হয়। ফলে সেতুর পূর্বপাড়ে টাঙ্গাইলের অন্তত ২০ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়াও বাকি অংশে খুবই ধীরগতিতে যানবাহন চলছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার থেকে চার লেন মহাসড়কের উত্তরবঙ্গগামী লেনটিতে যানবাহনের চাপ বেড়েছে। তবে ঢাকাগামী লেনে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। কোরবানির পশুবাহী ট্রাকের পাশাপাশি অতিরিক্ত যানবাহনের চাপে এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। মহাসড়ক যানজটমুক্ত রাখতে আট শতাধিক পুলিশ ও ১৯০ জন আনসারসহ দেড় শতাধিক লোক দায়িত্ব পালন করছে। এছাড়াও মহাসড়কে চলাচল কারী যাত্রীরা যাতে ছিনতাই ও অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে না পড়েন তার জন্য গোয়েন্দা তৎপরতা রয়েছে।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে অস্বাভাবিকভাবে গাড়ির সংখ্যা বেড়ে গেছে। পাটুরিয়া ঘাট থেকে ২০ কিলোমিটার ছাড়িয়ে গেছে লাইন। এছাড়া মহাসড়কে ৪টি বাস বিকল হওয়ায় যানচলাল বিঘ্নিত হচ্ছে চরমভাবে।

মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম সাংবাদিকদেরকে বলেন, শিমুলিয়া-কাঠালবাড়ী নৌপথে ফেরি চলাচল ব্যহত হওয়ায় ওই পথের গাড়ীগুলিও পাটুরিয়ায় আসার ফলে গাড়ির চাপ বেড়ে গেছে।

তিনি বলেন, গাড়ির লাইন পাটুরিয়া ঘাট থেকে মানিকগঞ্জ বাস স্ট্যান্ড ছাড়িয়ে গেছে। লোকাল গাড়িগুলি যেখানে সেখানে ঘোরাতে যেয়ে সমস্যাটা আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

যান চলাচল স্বাভাবিক রাখতে তিনি নিজেই সকাল থেকেই মহাড়কে দায়িত্ব পালন করছেন।

বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের সহকারী মহাব্যবস্থাপক জিল্লুর রহমান বলেন, ঈদের যাত্রী বাড়ি ফিরতে শুরু করেছে। একারণে সবধরণের গাড়ির চাপ বেড়ে গেছে। তবে, ২০টি ফেরি দিয়ে প্রাণপন চেষ্টা করছেন পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে। ধৈর্য্য সহকারে সাময়িক সমস্যার মোকাবেলা করার জন্য যাত্রীসাধারণকে অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

ঈদে ঘরমুখো মানুষের চাপে দক্ষিণ বঙ্গের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার শিমুলিয়া ঘাটে যানজট তৈরি হয়েছে; পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে চার শতাধিক গাড়ি।

বিআইডব্লিউটিসির শিমুলিয়া ঘাটের এজিএম মো. নাসির উদ্দিন জানান, “শুক্রবার ভোর থেকে শিমুলিয়া ঘাটে ঘরমুখো মানুষের ভিড় বাড়তে শুরু করে। বেলা পৌনে ১টা থেকে চার শতাধিক গাড়ি ঘাট এলাকায় পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে।”

এদিকে ঘাটের নিরাপত্তা ও ঈদে ঘরমুখোদের পারাপার নির্বিঘ্ন করতে আইন- শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জয়েদুল আলম পিপিএম (বার) জানান।