আওয়ামী লীগে ১৫০০ অনুপ্রবেশকারী চিহ্নিত

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীদের যে তালিকা তৈরি করেছেন, তাতে দেড় হাজার জনের মতো নাম রয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

শুক্রবার (১ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সফিপুর এলাকায় ফ্লাইওভার ও ফোর লেন কাজ পরিদর্শনকালে মন্ত্রী এ কথা জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলে অনুপ্রবেশকারীদের একটি তালিকা তৈরি করেছেন। তাতে দেড় হাজার জনের নাম রয়েছে। আগামী সম্মেলনের মধ্য দিয়ে এসব অনুপ্রবেশকারী তথা বিতর্কিত ও অপকর্মকারী লোকজন যাতে আওয়ামী লীগের কোনো পর্যায়ের নেতৃত্বে না আসতে সেজন্য তালিকাটি বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্তদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

তিনি বলেন, বিতর্কিত ব্যক্তিরা যাতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ঢুকতে না পারে সেজন্য সংশ্লিষ্ট শাখার নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সারাদেশে নতুন করে সম্মেলন হচ্ছে। এতে নতুন নেতৃত্ব আসছে। অনুপ্রবেশকারীরা অন্য দল থেকে সরকারি দলে ঢুকে পড়েছে। যারা ভালো মানুষ, দলের জন্য কাজ করতে পারেন, তারা অন্য দল থেকে আসতে পারেন। যারা চিহ্নিত ভূমিদস্যু, তারা সরকারি দলে এসে খারাপ কাজে জড়িয়ে পড়ছেন। তাদের বিরুদ্ধেই এ অভিযান।

ক্যাসিনো বন্ধের অভিযানে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর বিভিন্ন নেতা গ্রেপ্তার হওয়া এবং আরও অনেকের জড়িত থাকার অভিযোগ উঠার পর দলে অনুপ্রবেশকারী ও বিতর্কিতদের বিতাড়িত করার দাবি ক্ষমতাসীন দলটিতে জোরেশোরে উঠে।

এমন প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা তার ‘নিজস্ব কিছু লোকজনের, কাছ থেকে পাওয়া তথ্য ও গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে অনুপ্রবেশকারীদের এ তালিকা করেছেন বলে আগের ওবায়দুল কাদেরই জানিয়েছিলেন।

তিনি বলেন, বিভিন্ন শাখা ও সহযোগী সংগঠনের সম্মেলনে বিতর্কিত ও অনুপ্রবেশকারীরা যেন কমিটিতে আসতে না পারে সেজন্য বিভাগীয় নেতৃবৃন্দকে তালিকা দেওয়া হয়েছে।

সড়কে শৃঙ্খলা প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা না থাকলে উন্নয়নের কোনও মূল্য নেই। বহুল প্রতীক্ষিত সড়ক আইন কার্যকর হয়েছে। সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে সড়ক আইন পাস হয়েছে। সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। এ বিষয়ে সাংবাদিকদেরও দায়িত্ব রয়েছে।’