আবরারের মরদেহ উত্তোলনের নির্দেশ

কিশোর আলোর অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মারা যাওয়া ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের শিক্ষার্থী নাইমুল আবরারের মরদেহ কবর থেকে দ্রুত উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

নাইমুলের বাবা মজিবুর রহমানের দায়ের করা একটি মামলার নথি পর্যালোচনার পর বুধবার (৬ নভেম্বর) ঢাকার অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আমিনুল হকের আদালত এ আদেশ দেন।

মজিবুর রহমান বাদী হয়ে প্রথম আলোর সম্পাদক ও প্রকাশক এবং কিশোর আলোর প্রকাশক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে মামলাটি দায়ের করেন। তার বিরু‌দ্ধে দণ্ড‌বি‌ধির ৩০৪ (ক) ধারায় অব‌হেলাজ‌নিত মৃত্যুর অ‌ভি‌যোগ এনে মামলা‌টি ক‌রা হয়।

নাইমুলের মৃত্যুর ঘটনায় যে অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে, সেই মামলাকে বর্তমান মামলার সঙ্গে একীভূত করে তদন্ত করে আগামী ১ ডিসেম্বরের মধ্যে মোহাম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা‌কে (ও‌সি) প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন আদালত।

গত ১ নভেম্বর বিকালে মোহাম্মদপুরে ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ প্রাঙ্গণে কিশোর আলোর অনুষ্ঠান চলাকালে মঞ্চের পেছনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয় আবরার। এরপর আয়োজকরা তাকে উদ্ধার করে মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। আবরার ওই প্রতিষ্ঠানের নবম শ্রেণির দিবা শাখার শিক্ষার্থী ছিল। আবাসিক এ শিক্ষার্থীর গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী।