বেপরোয়া গতিই কেড়ে নিল দশটি তাজা প্রাণ

বেপরোয়া গতির কারণে মুন্সীগঞ্জের বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বরযাত্রীর গাড়ির ওপর পড়ে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

জেলার শ্রীনগর থানার ওসি হেদায়েতুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, স্বাধীন পরিবহনের এই বাসটি বেপরোয়া গতিতে অন্য একটি বাসকে ওভারটেক করলে বরযাত্রীদের মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলায় বাস ও বরযাত্রীবাহী মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে ১০ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৮ জন।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন- বরের বাবা আব্দুর রশীদ ব্যাপারি (৬০), বোন লিজা (২২), লিজার মেয়ে তাবাসসুম (৪), ভাবি রুনা আক্তার (২২), রুনার ছেলে তাহসিন (৩), তাদের প্রতিবেশী কেরামত আলী (৭০), মফিুজুল (৬০), মাইক্রোবাসের চালক বিল্লাল মিয়া (২৮) ও রুমা আক্তার নামে এক নারী।

শ্রীনগর থানার ওসি হেদায়েতুল ইসলাম ভুইয়া জানান, শুক্রবার বেলা ২টার দিকে উপজেলার ষোলঘরে এলাকায় ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কনকশার থেকে বরযাত্রী বহরের সঙ্গে কেরানীগঞ্জের কামরাঙ্গীচর যাচ্ছিল মাইক্রোবাসটি। পথে মাওয়াগামী স্বাধীন পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষে হলে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

শ্রীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা গেছে, ১০ জন যাত্রী আহত অবস্থায় এসে এখানে চিকিৎসা গ্রহণ করছে। এ ঘটনায় নিহতদের মধ্যে শ্রীনগর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এক বৃদ্ধা (৭০) ও  এক শিশুর (৮) মরদেহ রয়েছে।

জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলম বলেন, এ ঘটনায় মাইক্রোবাসের চালকসহ ১০ জন নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে ৬ জন দুর্ঘটনাস্থলে, দুই জন ষোলঘর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও দুই জন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে মারা যান। গুরুতর আহত আছেন আরও দুইজন। এছাড়া আরও কয়েকজন আহত রয়েছেন।