ভোট পেছানোর দাবিতে শাহবাগ অবরোধ

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে রাজধানীর শাহবাগে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করছেন।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটার পর থেকে শাহবাগ মোড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করেন। একপর্যায়ে সেখানে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

৩০ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটি নির্বাচন এবং সরস্বতীপূজা। পূজার দিনে ভোটের তারিখ পড়ায় তা পেছানোর দাবি তুলেছেন শিক্ষার্থীরা।

সরস্বতীপূজার কারণে নির্বাচন পেছানোর জন্য হাইকোর্টে একটি রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ। শুনানি শেষে আজ রিটটি খারিজ করে দেন বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের বেঞ্চ। আদালত বলেছেন, ঢাকার দুই সিটির নির্বাচনী কার্যক্রম এখন যে অবস্থায় আছে, ভোটের তারিখ পেছানোর কোনো সুযোগ নেই। তাই নির্বাচন পেছাতে যে রিট করা হয়েছে, তা সরাসরি খারিজ করা হলো।

এদিকে, নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মো. আলমগীর হোসেন বলেছেন, ভুল-ভ্রান্তি থাকলেও সবাই হয়তো বুঝবে ৩০ জানুয়ারি ভোটের সিদ্ধান্ত বৃহত্তর স্বার্থেই নেওয়া হয়েছে। একটা সুন্দর দিন বেছে নেওয়া হয়েছে। কারোরই কোনো অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

তিনি বলেন, কমিশন যেটা বলেছে, সব স্কুলে কিন্তু পূজা হয় না। বাকি স্কুলে যেখানে পূজা হবে, সে জায়গাটা ছেড়ে দেবে। আবার সরকারি অনেক অফিস, আদালতেও পূজা হয়। সেখানে অনেক রুম থাকে। তাই যেখানে পূজা হবে, সে রুম ছেড়ে দিয়ে অন্য রুমে নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হবে। পূজার জায়গায় পূজা চলবে, নির্বাচনের জায়গায় নির্বাচন হবে।

নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবিতে শিক্ষার্থীরা স্লোগান দিচ্ছেন ‘৩০ তারিখের নির্বাচন মানি না মানব না’, ‘পূজার দিনে নির্বাচন মানি না মানব না’। শিক্ষার্থীরা বলেন, নির্বাচনের কমিশনের মতো একটি দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানের এটা করা ঠিক হয়নি। তাঁরা জানান, দাবি না মানা পর্যন্ত বিক্ষোভ চালিয়ে যাবেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ১১ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের তারিখ পরিবর্তনের দাবি জানিয়েছিল।