বাউল গান যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয়: প্রধানমন্ত্রী

বাউল গানকে বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে তুলে ধরতে আওয়ামী লীগ সফল হয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আজকে যে বাউল গান বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান পেয়েছে, সেটা যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয়। সে ব্যাপারে আমাদের সচেতন করা দরকার এবং সচেতন হওয়া দরকার।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনুর এক সম্পূরক প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। অধিবেশনের সভাপতিত্ব করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাউল গানকে বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে তুলে ধরতে আমরা উদ্যোগ নিয়েছি, সেটা আমরা অর্জন করেছি। বাউল গানের তো কোনো দোষ নেই। কিন্তু বাউল গান যারা করে বা ব্যক্তিবিশেষ যদি কোনো অপরাধে সম্পৃক্ত হয়, তাহলে আইন তার আপন গতিতে চলবে। আইনে যে ব্যবস্থা রয়েছে সেটা নেবে। এটার সঙ্গে গানের সম্পৃক্ততা নেই।

এ সময় হাসানুল হক ইনুর উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আপন কি এই নিশ্চয়তা দিতে পারবেন,  যারা বাউল গান গাচ্ছেন, আর বাউল গান গাচ্ছে বলেই তারা কেউ অপরাধ ছাড়া, অপরাধের ঊর্ধ্বে। কোনো অপরাধ করেন না, বা করেননি, এটা তো ঠিক না। যেহেতু গ্রেপ্তার করা হয়েছে, নিশ্চয়ই কোনো অপরাধের সঙ্গে সংযুক্ত বলে বা অপরাধ সংগঠিত হয়েছে বলে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। কাজেই বিষয়টার সঙ্গে ঐতিহ্যের কোনো সম্পর্ক নেই। বরং বলবো এরা এমন কোনো কাজ যেন না করে, আজকে যে বাউল গান বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান পেয়েছে, সেটা যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয়। সেই ধরনের কাজ যেন তারা না করেন। সে ব্যাপারে আমাদের সচেতন করা দরকার এবং সচেতন হওয়া দরকার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, কেউ যদি কিছু করে থাকে, অপরাধ যদি করে, আমরা দেখবো এবং যথাযথ ব্যবস্থা নেবো। অহেতুক কারো চুলকাটা বা গানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করা এটা মোটেই গ্রহণযোগ্য না। কুষ্টিয়ায় বাউলের ওই জায়গায় উন্নয়ন আওয়ামী লীগ সরকারই করে দিয়েছে। সেখানেও বাধা পেয়েছি। সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী ছিল ওবায়দুল কাদের। প্রথমবার করতে গেলাম, তখন অনেকেই বাধা দিয়েছে। ঝুঁপড়ি, টুপির করে তারা ওভাবেই থাকবে। পরে সুন্দর করে ঘর করে দেওয়া হয়েছে বাউল গানের ঐতিহ্য রক্ষা করার জন্য। সে কারণে তো বাউল গান বিশ্ব ঐতিহ্যে স্থান পেয়েছে।