চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে যেতে চান খালেদা জিয়া

দুর্নীতি মামলায় দায়ে সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন চেয়ে আবারো হাইকোর্টে আবেদন করা হয়েছে। আবেদনে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে তথা যুক্তরাজ্যের মতো দেশে অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্টের সুযোগ চাওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) হাইকোর্ট বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ আবেদন দাখিল করা হয়েছে বলে জানান খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট সগির হোসেন লিওন।

জামিন আবেদনে বলা হয়, ১২ ডিসেম্বরের পরে তার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে যাচ্ছে। আবেদনকারী (খালেদা জিয়া) এখন মারাত্মকভাবে (সিরিয়াসলি) অসুস্থ। অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি চলতে পারেন না। এমনকি অন্যের সাহায্য ছাড়া তিনি খাবার এবং ওষুধও নিতে পারেন না। সুতরাং তার বিদেশে, যেমন যুক্তরাজ্যে অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট/থেরাপি (বায়োলজিক এজেন্ট) দরকার। এখন বিদেশে মডার্ন অ্যাডভান্স থেরাপি চিকিৎসার জন্য অসুস্থার নতুন যুক্তিতে জামিন প্রার্থনা করা হয়েছে।

তার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন বলেন, আমাদের তো দেখা করতে দেয় না, আমরা তার (খালেদা জিয়া) আত্মীয় স্বজনের মাধ্যমে জানতে পারলাম, আগে যে অবস্থা ছিল তার থেকে আরো অবনতি হয়েছে। বিশেষ করে তার ডায়াবেটিস এখন ১৪/১৫-এর নিচে নামছে না। এখন তিনি বসতেও পারেন না, খেতেও পারেন না, এই অবস্থা দেখছি। 

তিনি  আরও বলেন, এজন্য আমরা জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা এবং আমাদের নীতি-নির্ধারণী ফোরাম এক সাথে বসে সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিষয়টি নিয়ে আবার আমরা আদালতের কাছে যাবো। আজকে মোটামুটিভাবে পিটিশনটা রেডি করে এফিডেভিট করেছি। কালকে আদালতের কাছে যাবো, জামিন চাইবো।

কোন যুক্তিতে জামিন চাওয়া হয়েছে এমন প্রশ্নে জয়নুল আবেদীন বলেন, আমাদের একটাই কারণ সেটা হলো মানবিক। খালেদা জিয়া অসুস্থ, তাকে বাঁচানো দরকার। আমাদের দেশের আদালত তো মানুষের জন্য। সে কথাগুলো বলবো।