গৌরব '৭১ যুক্তরাজ্য শাখার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন

‘বাঙ্গালীর জাগরণে মহাজাদুকর’ এ স্লোগান নিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উদযাপন করেছে স্বাধীনতার স্বপক্ষের সংগঠন গৌরব '৭১ যুক্তরাজ্য শাখা।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ, ২০২০) পূর্ব লন্ডনের একটি হলে এই অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা এবং অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম পাটোয়ারী।

অনুষ্ঠানের শুরুতে নুরুজ্জামান খানের পরিচালনায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং বিশ্ব যেন করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবা থেকে মুক্তি পায় সেজন্য মহান আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা হয়।


জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, তাঁর পরিবারবর্গ ও সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে ১মিনিট নিরবতা পালন করা হয় এবং বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

মুজিব শতবর্ষের অনুষ্ঠানে গৌরব '৭১ যুক্তরাজ্য শাখা কেন্দ্রীয় কমিটির সাথে একাত্মতা ঘোষণা করে। বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনতে গৌরব '৭১ যে অনলাইন পিটিশনের আয়োজন করছে সেটিতে ১০ হাজারের বেশী মানুষ স্বাক্ষর করেছে। মুজিববর্ষে সেই পিটিশন চলমান রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর খুনিরা যে যেখানেই থাকুক না কেন গৌরব '৭১ তাদের ফিরিয়ে এনে সবোর্চ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে বরাবরের ন্যায় রাজপথে থাকবে। এবিষয়ে গৌরব '৭১ যুক্তরাজ্য শাখা কেন্দ্রিয় কমিটির সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছে।

উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, গৌরব '৭১ যুক্তরাজ্য শাখার সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম পাটোয়ারী, গৌরব '৭১ এর সদস্য ও সর্ব ইউরোপ বাংলাদেশী অ্যাসোসিয়েশন ইউকে এর সভাপতি মামুনুর রশিদ, সহ সভাপতি মির নাসির, নুরুজ্জামান খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহমেদ রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক আল মামুন ফকির, কোষাধ্যক্ষ আ: হাকিম সিকদার, সদস্য আক্তার হোসেন বাচ্চু ও নাজমা সুলতানা সহ আরো অনেকে।

বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু শুধু একটি নামই নয়, বাঙ্গালীর স্বপ্ন, সার্বভৌমত্ব, অস্তিত্ব, একটি ইতিহাস, একটি লাল সবুজ পতাকা, একটি স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামী চেতনার নাম বঙ্গবন্ধু।

বক্তারা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে সঠিকভাবে ধারণ করতে হবে এবং তা নতুন প্রজন্মের মাঝে ছড়িয়ে দিতে হবে। জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে জননেত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে হবে। মুজিববর্ষের ব্রত হউক মানব কল্যাণ। এই শপথ নিয়ে অনুষ্ঠান শেষ করা হয়।