এসিল্যান্ডদের সতর্ক করলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

যশোরের মণিরামপুরে তিন বৃদ্ধকে কান ধরিয়ে ছবি তোলার ঘটনায় মর্মাহত জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন।

শনিবার (২৮ মার্চ) দুপুরে প্রতিমন্ত্রী বলেন, তাকে (এসিল্যান্ড) প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে মানুষের সঙ্গে কেমন ব্যবহার করতে হবে। তারপরও উনি এমনটা কেন করলেন, মানতে পারছি না। দুই একজনের জন্য সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে। ডিসিকে দিয়ে বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে।

যদিও ইতোমধ্যেই তুমুল সমালোচনার মুখে এসিল্যান্ড (উপজেলা সহকারী কমিশনার-ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

সব এসিল্যান্ডকে সতর্ক করে তিনি বলেন, সব জেলার ডিসি এসিল্যান্ড ও ইউএনও-কে নিয়ে বসবেন। যাতে কোনো শৃঙ্খলা ভঙ্গ না হয়। মাঠে কাজ করতে গিয়ে সবসময় সবার সঙ্গে বিনয়ের সঙ্গে আচরণ করতে হবে। জনগণ কষ্ট পায়, এমন আচরণ সহ্য করা হবে না।

শুক্রবার বিকেলে মনিরামপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালান। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিনাটোলা বাজারে অভিযানের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে পড়েন প্রথমে দুই বৃদ্ধ। এর মধ্যে একজন বাইসাইকেল চালিয়ে আসছিলেন, অপরজন রাস্তার পাশে বসে কাঁচা তরকারি বিক্রি করছিলেন। তাদের মুখে মাস্ক ছিল না।

এ সময় পুলিশ ওই দুই বৃদ্ধকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে সাইয়েমা হাসান শাস্তি হিসেবে তাদের কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। শুধু তাই নয়, এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজেই তার মোবাইল ফোনে এ চিত্র ধারণ করেন। এছাড়া পরে অপর এক ভ্যানচালককে অনুরূপভাবে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন।

এ ঘটনার ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার ঝড় ওঠে। এর জেরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।