বাংলাদেশি ভেবে ভারতীয় নাগরিককে হত্যা করল বিএসএফ

কুড়িগ্রামের রৌমারী সীমান্তে ভারতীয় এক নাগরিককে গুলি করে হত্যা করেছে বিএসএফ'র সদস্যরা।

সোমবার দিবাগত রাতে উপজেলার খেতারচর সীমান্তে এ ঘটনা ঘটে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানিয়েছেন, নিহত মোহাম্মদ আলী (২০) ভারতের আসাম রাজ্যের হাটশিংঙিমারী জেলার পুড়ান দিয়াড়া থানাধীন পুড়ান ছাটকড়াইবাড়ীর মন্ডল কান্দি গ্রামের মো. জাকির হোসেনের পুত্র। তিনি স্থানীয় এক কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী।

সীমান্ত সংশ্লিষ্ট এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ভারতীয় কাঁটাতারের ওপরে বাঁশের তৈরি আড়কি লাগিয়ে গরু পারাপারের উদ্দেশ্যে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে ঢুকে পড়ে মোহাম্মদ আলীসহ ১৫ থেকে ২০ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল। তারা অবৈধভাবে ভারতীয় গরু পাচার করছিল বাংলাদেশে।

এ সময় ভারতের দ্বীবচর বিএসএফ ক্যাম্পের টহলরত সদস্যরা 'বাংলাদেশি গরু চোরাকারবারি' ভেবে গুলি ছুড়ে। এতে মোহাম্মদ আলী নামের ওই ভারতীয় যুবক গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ক্যাম্পে নিয়ে যান বিএসএফের সদস্যরা।

দাঁতভাঙা ইউনিয়নের স্থানীয় ইউপি সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, সীমান্তে বাংলাদেশি ভেবে ভারতীয় নাগরিককে গুলি করে হত্যা করেছে বলে মানুষের কাছ থেকে শুনেছি। সুনির্দিষ্ট ভাবে কি কারণে তাকে গুলি করেছে তা আমার জানা নেই।

দাঁতভাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার জয়েন উদ্দিন জানান, বিএসএফের গুলিতে ভারতীয় এক নাগরিক নিহত হওয়ার খবর শুনেছি। স্থানীয় অধিবাসীরা জানিয়েছেন নিহত নাগরিক ভারতীয়।