শনাক্তের হার ২ শতাংশের নিচে, ৮ মাসে সর্বনিম্ন মৃত্যু

দেশে দীর্ঘদিন পর দৈনিক নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্ত কোভিড রোগীর হার ২ শতাংশের নিচে নেমে এসেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের হার ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ।


গত ২৪ ঘন্টায় ১৫ হাজার ৫৮০টি নমুনা পরীক্ষায় নতুন রোগী শনাক্ত হয় ২৯৩ জন। এ নিয়ে মোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়ালো ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৪ জন।


শনিবার (১৬ অক্টোবর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনা পরিস্থিতি সংক্রান্ত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।


এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে পুরুষ চারজন ও নারী দুইজন। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৭৫২ জনে।


গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের বিভাগওয়ারি হিসাবে দেখা গেছে, ঢাকায় তিনজন, চট্টগ্রামে একজন, খুলনায় একজন ও সিলেটে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি চার বিভাগে কেউ মারা যাননি।


বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা (কোভিড-১৯) থেকে সেরে উঠেছেন ৪৪২ জন। এ নিয়ে মহামারি থেকে চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৩ জনে।


দেশে করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রকোপ কমতে শুরু করেছে। রাজধানীসহ সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্তে সরকারি-বেসরকারি ৮২৯টি ল্যাবরেটরিতে ১৫ হাজার ২৫১ জনের নমুনা সংগ্রহ ও ১৫ হাজার ৫৮০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এতে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ২৯৩ জন। শনাক্তের হার ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ। এর আগের দিন (১৫ অক্টোবর) শনাক্তের হার ছিল ২ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ, তার আগের দিন (১৪ অক্টোবর) ২ দশমিক ১৬ শতাংশ।


এনিয়ে মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়ালো এক কোটি ৭৬ হাজার ৮২৫টি। বিপরীতে মোট শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ১৭৪ জন। নমুনা পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৫৩ শতাংশ।


দেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম তিনজনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর ১০ দিন পর ওই বছরের ১৮ মার্চ দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়।