ভারত-পাকিস্তানকে যেসব খাতে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ

মাথাপিছু আয়সহ গত ৩০ বছরেবেশ কয়েকটি খাতে প্রতিবেশী দুই দেশ পাকিস্তান ও ভারতকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ।


বুধবার ঢাকার একটি হোটেলে বাংলাদেশ উন্নয়ন গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (বিআইডিএস) বার্ষিক উন্নয়ন সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।


‘বাংলাদেশ ইন কম্পরেটিভ পার্সপেক্টিভ’ শীর্ষক প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরেন বিআইডিএস মহাপরিচালক ড. বিনায়েক সেন।


প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১৯৯০ সালে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় ২ দশমিক ৫৪ শতাংশ হারে বাড়লেও এখন সেটি বেড়ে ৫ দশমিক ০৩ শতাংশ হয়েছে। ওই সময় ভারতের মাথাপিছু আয় ৩ দশমিক ২৬ শতাংশ হারে বাড়ত। কিন্তু এখন তা কমে ১ দশমিক ১৪ শতাংশ হয়েছে।


একইভাবে নব্বইয়ের দশকে পাকিস্তানের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধির হার ছিল ১ দশমিক ৬৯ শতাংশ। এটি এখন আরও কমে শূন্য দশমিক ৮৬ শতাংশ হয়েছে। নব্বইয়ের দশকে মাথাপিছু আয়ে পাকিস্তানের চেয়ে ৪৫ শতাংশ পিছিয়ে ছিল বাংলাদেশ। এখন পাকিস্তানের চেয়ে মাথাপিছু আয় ১০ শতাংশ এগিয়ে। 


উৎপাদন খাতেও ভারত ও পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়।


নব্বইয়ের দশকে এ খাতে বাংলাদেশের অগ্রগতি ছিল ১৩ দশমিক ২৪ শতাংশ। এখন হয়েছে ১৮ দশমিক ৯৩ শতাংশ। একই সময়ে ভারতে উৎপাদন খাতে প্রবৃদ্ধি ছিল ১৬ দশমিক ৬ শতাংশ। এখন কমে দাঁড়িয়েছে ১২ দশমিক ৯৬ শতাংশ। '৯০ দশকে এ খাতে পাকিস্তানের প্রবৃদ্ধি ছিল ১৫ দশমিক ৪৬ শতাংশ। এখন কমে দাঁড়িয়েছে ১১ দশমিক ৫৪ শতাংশ।


নগরায়ণেও এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ। নব্বইয়ের দশকে বাংলাদেশের নগরায়ণ হার ছিল ১৯ দশমিক ৮১ শতাংশ। এখন বেড়ে হয়েছে ৩৪ দশমিক ১৭ শতাংশ। ভারতে একই সময়ে নগরায়ণের হার ছিল ২৫ দশমিক ৫৫ শতাংশ। এখন দাঁড়িয়েছে ৩৪ দশমিক ৯২ শতাংশ। 


নব্বইয়ের দশকে পাকিস্তানে নগরায়ণ হার ছিল ৩০ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এখন হয়েছে ৩৭ দশমিক ১৭ শতাংশ। ফলে বাংলাদেশে নগরায়ণ বেড়ে চলেছে ভারত ও পাকিস্তানের তুলনায়।