বিএনপি মচকাবে, ভাঙবে না: জয়নুল আবেদীন

বিএনপি মচকাবে, ভাঙবে না বলে ক্ষমতাসীদের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন দলটির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। শনিবার (১৪ মে) জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঢাকা জেলা বিএনপির উদ্যোগে আয়োজিত এক বিক্ষোভ সমাবেশে এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি। 'দেশব্যাপী আওয়ামী সন্ত্রাসী ও নৈরাজ্যের প্রতিবাদে' এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।


ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশ্যে করে তিনি বলেন, বিএনপি শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের দল, বেগম খালেদা জিয়ার দল এবং এই দল তারেক রহমানের দল। কাজেই আপনারা যতোই চেষ্টা করেন না কেনো- এই দলকে কোনো অবস্থাতেই ভাঙা যাবে না। এই দল মচকাবে, ভাঙবে না। কিন্তু অনেক ষড়যন্ত্র চলছে। দল ভাঙার ষড়যন্ত্র করে তারা নিজেরা বক্তব্য দিচ্ছেন যে, এই সরকার পতনের ষড়যন্ত্র না কি শুরু হয়েছে।


জয়নুল আবেদীন বলেন, আমার কানে এসেছে, আমাদের দলের মধ্যে একটা ভাঙন সৃষ্টির চেষ্টা করা হচ্ছে। কিছু কিছু হালুয়া-রুটি দেবে, সেই হালুয়া-রুটির কারণে কিছু কিছু লোকজন চলে যাবে। আমি এরকম কোন লক্ষণ দেখি না। তারপরেও যা কানে শুনি, তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই- আপনারা যদি হালুয়া-রুটির লোভের কারণে যদি কোনোভাবে এই দলের সাথে বেইমানি করেন, এই বেইমানদের জায়গা বাংলাদেশে হবে না। বিএনপিতে তো হবেই না।


সরকারের কলাকৌশলিরা নির্বাচনে রোড ম্যাপ তৈরি করছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, এই রোড ম্যাপ নির্বাচনী নয়। এই রোড ম্যাপ হচ্ছে, কিভাবে কোন পথে তারা বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত হয়ে যাবে। সেই রোড ম্যাপ।


নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে জয়নুল আবেদীন বলেন, আন্দোলন শুরু হয়েছে। এই রাজধানী থেকে যে আন্দোলন শুরু হয়েছে তার মাধ্যমেই বর্তমান সরকারের পতন হবে।


নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ক্ষসতাসীনরা বিএনপিকে নির্বাচনে নেয়ার জন্য অহেতুক চেষ্টা করছে। আমরা পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিয়েছি, বিএনপি আপনাদের (সরকারের মন্ত্রী) এই আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে আর কোনো নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে না।


বিএনপি আন্দোলন করতে জানে না আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের এই বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপি এই আইনজীবী নেতা বলেন, আন্দোলনের কি দেখেছেন। আপনারা বড় স্বৈরাচার হয়েছেন। আপনারা ভাবছেন, এই বড় স্বৈরাচারকে আন্দোলন করে নামানো যাবে না। বিগত দিনের কথা আপনারা একটু চিন্তা করেন। আর আমাদের এই আন্দোলন আপনারা থামাতে পারবেন না।


'আপনারদের আর অল্প মাত্র কয়েকদিন সময় আছে। খুব বেশিদিন সময় নাই। আর এই সরকার আর টিকতে পারবে না। সময় থাকে। একটা আয়ু থাকে। আপনারা ভেবেছেন, আগের বারের মতো মিথ্যা কথা ও আশ্বাস দিয়ে বিএনপিকে নির্বাচনে নেবেন- তা হবে না। তাই এখনো সময় আছে। কারণ বিএনপি মনে করে যদি আপনারা বাঁচতে চান তাহলে নিরপেক্ষ সরকারে অধীনে নির্বাচন দিয়ে মানে মানে বিদায় হন।


ঢাকা জেলা বিএনপির সভাপতি ডা. দেওয়ান মো. সালাউদ্দিনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আবু আশফাকের সঞ্চালনায় সমাবেশ কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নিপুণ রায় চৌধুরীসহ ঢাকা জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দরা বক্তব্য রাখেন।