শিষ্যকে যৌন হেনস্তা, গ্রেপ্তার সেই কোচ

ভারতের এক কিশোরী সাঁতারুকে যৌন হেনস্থা করার অভিযোগে অভিযুক্ত কোচ সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় তাঁকে দিল্লি থেকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়া পুলিশ।

ওই কিশোরীকে যৌন হেনস্থার খবর প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিলেন অভিযুক্ত কোচ সুরজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। অভিযুক্ত কোচকে খুঁজে বার করতে গোয়া পুলিশ বেঙ্গালুরু এবং ভোপালে বিশেষ দলও পাঠিয়েছিল তারা। এ দিন সন্ধ্যায় সুরজিৎকে দিল্লি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন গোয়ার মাপুসা থানার আধিকারিক কপিল নায়েক।

অভিযুক্ত কোচের বিরুদ্ধে ৩৭৬ (ধর্ষণ), ৩৫৪ (যৌন হেনস্থা) এবং ৫০৬ (সমাজবিরোধী কার্যকলাপ) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে। শুধু তা-ই নয়, শিশু নিগ্রহের অভিযোগে পকসো আইনেও মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গত ছ’মাস ধরে ওই কোচ জাতীয় পর্যায়ে অংশ নেওয়া ওই সাঁতারুর সঙ্গে অশালীন আচরণ করতেন বলে অভিযোগ। শেষে উপায় না দেখে ওই কিশোরী নিজের লুকিয়ে রাখা মোবাইলে কোচের যৌন হেনস্থার ভিডিও তুলে তা প্রকাশ্যে আনেন।

ফাঁস হওয়া সেই ভিডিওতে দেখা গেছে, আগে থেকেই ঘরের একটা জায়গায় ভিডিও রেকর্ডার অন করে একটি মোবাইল রেখে দিচ্ছে ওই কিশোরী। তার পর সে এগিয়ে যায় ঘরের দরজার দিকে। খোলা দরজা দিয়ে এর পর ওই কোচকে ঢুকতে দেখা যায়।

কিশোরীর ডান পায়ে ক্রেপ ব্যান্ডেজ বাঁধা। কোচ এসে প্রথমে সেই চোটের জায়গাটা দেখেন। তার পর নানা ভাবে কিশোরীর গায়ে হাত দেন। কিছুক্ষণ পর তিনি ঘর থেকে বেরিয়েও যান। এর পর মোবাইলের ভিডিও রেকর্ডার অফ করতে দেখা যায় কিশোরীকে।