এরাই কী তাহলে কোহলির অনুসারী!

বিশ্বকাপের পরই টিম ইন্ডিয়ার ক্যাপ্টেন ও ভাইস-ক্যাপ্টেনের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। সেমিফাইনালে হেরে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে যাওয়ার পর ফাইনাল পর্যন্ত বিরাটরা লন্ডনে থেকে গেলেও দুদিন আগেই দেশের ফিরেছিলেন রোহিত শর্মা। তখন থেকেই বিরাট-রোহিতের সম্পর্কে তিক্ততা প্রকাশ্যে আসে।

কিন্তু ক্যারিবিয়ান সফরের উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে সাংবাদিক বৈঠকে রোহিতের সঙ্গে তাঁর তিক্ততার কথা অস্বীকার করেন ক্যাপ্টেন কোহলি। তবে বুধবার সোশাল মিডিয়ায় রোহিতের একটি পোস্ট ক্যাপ্টেন ও ভাইস-ক্যাপ্টেনের মধ্যে সম্পর্কের ফাটল আরও চওড়া হয়।

এবার সেই দ্বন্দ্বে আরেকটু ঘি ঢাললেন বিরাট কোহলি। বুঝিয়ে দিলেন তিনিও রোহিতকে পছন্দ করেন না।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজকে সামনে রেখে বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় রয়েছে ভারতীয় দল। শনিবার শুরু সিরিজ। তার আগে খেলোয়াড়রা যার যার মতো করে নিজেদের ছবি পোস্ট করছেন, সেটা প্র্যাকটিসের হোক কিংবা ঘুরে বেড়ানোর।

এমনই এক ছবি পোস্ট করেছেন ভারতীয় অধিনায়ক কোহলিও। কিন্তু ড্রেসিংরুমে তোলা সে ছবির ক্যাপশনটা নিয়েই বেঁধেছে ঝামেলা। কোহলির পোস্ট করা ছবিতে মাত্র ৮ জন ভারতীয় খেলোয়াড় ছিলেন, সবাই ছিলেন না। তারপরও কোহলি সেখানে ক্যাপশন দিয়েছেন- ‘স্কোয়াড’।

অনেকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে ভারতীয় দল দুই ভাগে বিভক্ত। একদল কোহলির অনুসারী ও আরেকদল রোহিতের। নেটিজেনদের প্রশ্ন তাহলে কী এই সাতজন কোহলির অনুসারী। এ নিয়েই এখন চলছে জল্পনা কল্পনা। সেই সাথে হচ্ছে কোহলির মুণ্ডুপাতও।

ক্যারিবিয়ান সফরের উদেশ্যে দেশ ছাড়ার আগে সাংবাদিক বৈঠকে কোহলি বলেছিলেন, বাইরে থেকে আমি অনেক কথাই শুনেছি। কিন্তু এটা ভেবে দেখা উচিত, ড্রেসিংরুমের পরিবেশ ঠিক না-থাকলে আমরা ওয়ান ডে ক্রিকেটে উপরের দিকে থাকতে পারতাম না। ড্রেসিংরুমের পরিবেশ ঠিক না-থাকলে আমাদের সেরা পারফর্ম্যান্স বেরিয়ে আসত না। দলের এই পারফরম্যান্স সম্ভব বিশ্বাস ও পারস্পরিক বোঝাপড়ার উপর।

ক্যারিবিয়ান সফরে বিশ্রামে যাওয়ার কথা ছিল বিরাট কোহলির। কবে তার আগেই বিরাটকে সরিয়ে রোহিতকে ক্যাপ্টেন করার দাবি উঠে। এরপর বিশ্রামের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ক্যারিবিয়ান সফরে নিজের নাম ঢুকিয়ে দেন কোহলি। তাতেই সমস্যা আরও প্রকট হয়।