হার দিয়ে লিগ শুরু মেসিহীন বার্সার

মেসিহীন বার্সেলোনার আক্রমণ বিভাগ যে আজও কতটা নিষ্প্রাণ, তার প্রমাণ মিলল শুক্রবার রাতে লা লিগার প্রথম ম্যাচেই। ৭১ শতাংশ বল পজেশন নিয়েও বার্সা ১-০ হেরে গেল অ্যাতলেতিক বিলবাও এর বিরুদ্ধে।

বিগত দশ বছরে মেসি, সুয়ারেজরা অপরাজিত ছিলেন লিগের প্রথম ম্যাচে। ম্যাচটি ঘিরে ফুটবলপ্রেমীদের উৎসাহের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল মূলত দু’জন। সদ্য অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ থেকে দলে যোগ দেওয়া বিশ্বকাপজয়ী আতোঁয়া গ্রিজম্যান এবং আয়াখস থেকে আসা তরুণ মিডফিল্ডার ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ং। গ্রিজমান এ দিন ম্যাচে নিজের ছাপ ফেলতে সম্পূর্ণ রূপে ব্যর্থ হন।

শুরুটা ভালই করেছিল আরনেস্তো ভালভার্দের দল। বারংবার বার্সার আক্রমণ সামলাতে নাজেহাল হতে হয় বাস্ক দেশের ক্লাবের রক্ষণভাগকে। ৩০ মিনিটের মাথায় বিলবাও ডিফেন্ডারদের ভুল বোঝাবুঝির ফলে গোল করার সহজ সুযোগ চলে আসে উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার লুই সুয়ারেজের কাছে। কিন্তু সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারেননি এই অভিজ্ঞ স্ট্রাইকার। এর পরেই অবশ্য চোটের কারণে মাঠ ছাড়তে হয় তাঁকে।

বিলবাও বেশ কিছু সুযোগ তৈরি করলেও বেশির ভাগ সময়ই বল ধরা দেয় বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টারস্টেগনের দস্তানায়। ম্যাচের সপ্তম মিনিটে বিলবাও এর ইনিয়াকি উইলিয়ামসের শট ডান দিকে ঝাঁপিয়ে দুর্ধর্ষভাবে রুখে দেন জার্মান গোলরক্ষক। প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্য অবস্থায়।

দ্বিতীয়ার্ধে মাঝ মাঠের দখল পেতে বার্সা কোচ মাঠে নামান ক্রোয়েশিয়ার ইভান রাকিতিচকে। প্রথম পর্বের মতো আক্রমণ ও প্রতি আক্রমণের উত্তেজনা এই পর্বে দেখা যায়নি। ম্যাচ গড়ালে ক্লান্ত বার্সা ডিফেন্সকে ইনিয়াকি উইলিয়ামসের গতি বেশ বেগ দেয়।

এরপর পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামার ৬০ সেকেন্ডের মধ্যেই দুরন্ত স্করপিয়ান কিকে বার্সার গোলে বল জড়িয়ে দেন ৩৮ বছর বয়সী আরিজ আদুরিজ। পুরো ম্যাচ জুড়ে বারবার স্টেগনের দস্তানায় বল ধরা দিলেও এ ক্ষেত্রে তাঁকে শুধুমাত্র দর্শক হয়েই থেকে যেতে হয়।

মেসি ছাড়া বার্সা তাঁদের শেষ ছ’ম্যাচ জিততে ব্যর্থ। অত্যাধিক মেসি নির্ভরতা কাটাতেই হয়ত নেমারকে আরও একবার দলে নিতে চাইছেন বার্সা প্রেসিডেন্ট জোসেপ বার্তেমিউ।