তিন ম্যাচে শূন্য রানে আউট হতে পারতাম: সাকিব

শ্রীলঙ্কায় গিয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে বাংলাদেশ। তামিম ইকবালের নেতৃত্বাধীন দল কোনো ম্যাচেই সামান্য প্রতিদ্বন্দ্বীতা গড়তে পারেনি। তাই এই সিরিজ নিয়ে সমালোচনাটা একটু বেশিই হচ্ছে।

এই সমালোচনার মাঝেই উঠে এসেছে সাকিব আল হাসানের নাম। যিনি কিনা বিশ্রামে থাকায় এ সিরিজটি খেলেননি। তবে বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের বিশ্বাস সাকিব থাকলে সিরিজটা অন্য রকম হতে পারতো।

বিশ্বাসের কারণও আছে এই সাকিবই তো বিশ্বকাপে একা দলকে টেনে নিয়ে গেছেন। ৮ ম্যাচে ব্যাট হাতে ৬০৬ রান করার পাশাপাশি বল হাতে নিয়েছেন ১১ উইকেট। তাই সবাই এ সিরিজে বেশ মিস করেছেন দলের সহ-অধিনায়ককে।

তবে সাকিব বলছেন ভিন্ন কথা। বৃহস্পতিবার বনানতে ডেঙ্গু নিয়ে সচেতনতামূলক কার্যক্রমে গিয়ে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেন, তিনি থাকলেই যে ফল ভিন্ন হতো, সেটির নিশ্চয়তা নেই, ‘আমি গেলে ভালো কিছু নাও করতে পারতাম। টানা তিন ম্যাচে শূন্য রানে আউট হতে পারতাম। কোনো অবদান না–ও রাখতে পারতাম। যখন একটা ক্রিকেটার তৈরি থাকে, তখনই তার খেলা উচিত। তৈরি না থেকে খেলা উচিত নয়। ফিট না থেকে খেলা কঠিন, পারফরম্যান্সে সেটির প্রভাব ফেলে।

তিনি বলেন, এ জিনিসগুলো আমাদের বুঝতে হবে। আধুনিক ক্রিকেটে এত ম্যাচ, এসব সামলে খেলতে হবে। সিরিজের ফাঁকে তাই বিরতি থাকা দরকার। এতে অন্য ক্রিকেটারদের সুযোগ আসে। পাইপলাইনের ক্রিকেটারদের উঠে আসতে সাহায্য করে। এটা আসলে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়।

এবারের সিরিজে সাকিবকে দেখা যায়নি মূলত টানা ম্যাচ খেলে ক্লান্ত থাকার কারণে। কেন না সাকিব আইপিএল খেলেই সরাসরি চলে গেছেন ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলতে। এরপর খেলেছেন বিশ্বকাপ। সব মিলিয়ে ৪ মাস দিতে পারেননি পরিবারকে সময়। এ কারণেই তিনি বিসিবির কাছ থেকে ছুটি নেন।