একদিনেই গেল ১৬ উইকেট, উড়ছে ভারত

রঞ্চি টেস্টে তৃতীয় দিনে দক্ষিণ আপ্রিকার ১৬ উইকেট তুলে নিয়ে উড়ছে ভারত। কাল দুই উইকেট নিতে পারলেই প্রথমবারের মতো দক্ষিণ আফ্রিকাকে হোয়াইটওয়াশ করার কীর্তি গড়বে কোহলি বাহিনী।

২ উইকেটে ৯ রান নিয়ে তৃতীয় দিন শুরু করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রথম ইনিংসে বাকি ৮ উইকেট হারিয়ে তারা তুলতে পারে ১৬২ রান। এতে ফলোঅনে পড়ে যায় ডি কক বাহিনী। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শামি ও যাদবের তোপে মাত্র ১৩২ রানে তারা হারিয়ে বসেছে ৮ উইকেট।

এখনো ভারত এগিয়ে ২০৩ রানে। আগামীকাল চতুর্থ দিনে ২ উইকেট নিলেই নিশ্চিত হোয়াইটওয়াশ। সেই সাথে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে শীর্ষস্থান মজবুত করতে তারা।

সোমবার সকালে প্রথম ওভারেই ধাক্কা দেন উমেশ যাদব। অসাধারণ ডেলিভারিতে ফেরান ফাফ দু’প্লেসিকে। বল ভিতরে আসবে ভেবে সেই লাইনে খেলতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বল বাইরে বেরিয়ে ছুঁয়ে যায় অফস্টাম্প।

১৬ রানে তিন উইকেট পড়ার পর গুরুত্বপূর্ণ জুটি গড়ে তোলেন তিনে নামা হামজা ও পাঁচে নামা বাভুমা। দু’জনে চতুর্থ উইকেটে ৯১ রান যোগ করে ইনিংস মেরামতের চেষ্টা করেছিলেন। দু’জনে আক্রমণাত্মক মেজাজেই এগোচ্ছিলেন। হামজাকেও ছন্দেও দেখাচ্ছিল। কিন্তু রবীন্দ্র জাদেজা তাঁকে বোল্ড করতেই ফের চাপে পড়ে যায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ৭৯ বলে ১০টি চার ও একটি ছয়ের সাহায্যে ৬২ করেন হামজা।

পরের ওভারেই ফেরেন বাভুমা (৩২)। তাঁকে রীতিমতো বোকা বানিয়ে ফেরান শাহবাজ নাদিম। এগিয়ে এসে খেলার চেষ্টা করেছিলেন বাভুমা। স্টাম্পড করেন উইকেটকিপার ঋদ্ধিমান সাহা। তিন ওভার পরে হেনরিখ ক্লাসেন ৬ রান করে জাদেজার শিকার হন।

শেষ পর্যন্ত জর্জ লিন্ডের ৩৭ রানে ভর করে ১৬২ রান তুলতে সক্ষম হয় ডি কক বাহিনী। উমেশ যাদব সর্বোচ্চ তিন উইকেট নেন। এছাড়া শাহবাজ নাদিম, রবীন্দ্র জাদেজা ও মোহাম্মদ শামি দুইটি করে উইকেট নেন।

দ্বিতীয় ইনিংসে নেমে আরও বেহাল দশা। ৩৬ রানেই চলে যায় তাদের প্রথম ৫ উইকেট। ডি কক ৫, জুবায়ের হামজা ০, ডু প্লেসি ৪, টেম্বা বাভুমা ০ ও হেনরিক ক্লাসেন করেন ৫ রান। পাঁচটি উইকেটই নেন উমেশ যাদব আর শামি।

এরপর রিটায়ার্ড হার্ট হয়ে ফিরে যান ১৬ রান করা ডিন এলগার। এরপর জর্জ লিন্ডের ২৭, ডেন পিডেটের ২৩ আর থিউনিস ব্রুইনের অপরাজিত ৩০ রানে ভর করে ৮ উইকেটে ১৩২ রানে দিন শেষ করে আফ্রিকা।

মোহাম্মদ শামি তিনটি আর উমেশ যাদব নেন দুইটি উইকেট।