বড় কর্তাদের মুখে কুঁলুপ, সুজন বললেন কিছুই জানতেন না

সাকিব আল হাসান-তামিম ইকবালসহ শীর্ষ স্থানীয় ক্রিকেটাররা ১১ দফা দাবি জানিয়েছেন। এই দাবি মেনে নেয়া না পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেট থেকে নিজেদের বিরত রাখবেন বলে জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) এই দাবি না মানা পর্যন্ত ক্রিকেটাররা ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন। সব ক্রিকেটারদের পক্ষ থেকে দাবিগুলো উত্থাপন করেছেন বাংলাদেশের টেস্ট এবং টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

জাতীয় লিগ চলছে। সামনে গুরুত্বপূর্ণ ভারত সফর। বিসিবি এখন কী করবে? বিসিবির প্রভাবশালী পরিচালকেরা মুখে তালা মেরে বসে আছেন। তাঁরা এখন তাকিয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের দিকে।

তবে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী বিকেলে সাংবাদিকদের জানালেন, তাঁরা চেষ্টা করবেন খুব দ্রুত বিষয়টির সমাধান করতে। তিনি বলেন, মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা জানতে পেরেছি। আনুষ্ঠানিকভাবে আমাদের সঙ্গে সেভাবে যোগাযোগ হয়নি। অবশ্যই খেলোয়াড়েরা আমাদের কাছে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এ ব্যাপারে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করব।

নিজাম বলেন, পরবর্তী সময়ে বোর্ড সভায় এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবে। বিভিন্ন সময়ে তাদের নানা দাবিদাওয়া আসে। আমরা চেষ্টা করি, সেসব পূরণ করতে। আজ আমাদের বিষয়টি নজরে এসেছে। অবশ্যই আমরা বোর্ড সভায় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

টেস্ট মর্যাদা পাওয়ার পর এই প্রথম বাংলাদেশে ক্রিকেটারদের ধর্মঘট দেখা গেল। এত বড় ঘটনায় ভীষণ আলোড়ন তৈরি হচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বে। তবে প্রশ্ন হচ্ছে তারা কী খেলোয়াড়দের এই দাবিগুলোর কথা আগে জানতো না।

সূত্র বলছে, বিষয়গুলো নিয়ে অনেকদিন ধরেই চাপা ক্ষোভ ছিল ক্রিকেটারদের মধ্যে। তারা বিসিবিকে বেশ কয়েকবার দাবিগুলো জানিয়েছে। তবে বিসিবি এ ব্যাপারে তেমন কোনো আগ্রহ দেখায়নি।

নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজনও পরিষ্কার জানিয়ে দেন, তারা কিছুই জানতেন না। তার ভাষায়, ব্যক্তিগত আলাপচারিতায় বিচ্ছিন্নভাবে কারো কারো মুখ থেকে কিছু দাবির কথা শোনা গেলেও ক্রিকেটাররা যে ভিতরে ভিতরে ফুঁসে আছেন। রীতিমত একটা বিষ্ফোরনমুখ অবস্থা- তা তাদের জানা ছিল না।

কারণ, ক্রিকেটাররা আগে তাদের লিখিতভাবে কিংবা আনুষ্ঠানিকভাবে কিছুই জানাননি। মোটকথা সিইও বোঝাতে চাইলেন, ক্রিকেটারদের কোন দাবিই বোর্ডের কাছে আগে পেশ করা হয়নি। আজই তারা জেনেছেন এবং সেটা আজই, মিডিয়ার কাছ থেকে।

সিইওর কন্ঠে, বসেই সব বিষয়ের সমাধান করার আশ্বাস। তবে এ নিয়ে এখনো মুখ খুলেননি বিসিবির প্রধান কর্মকর্তারা। সামনেই ভারত সফর। এখন দেখা যাক এর আগেই খেলোয়াড়দের সাথে সমাধানে আসতে পারে কিনা বিসিবি।