তবুও বার্সেলোনা ছাড়তে নারাজ রাকিটিচ

বার্সেলোনার এক সময়ের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মিডফিল্ডার ছিলেন ইভান রাকিটিচ। ক্রোয়েশিয়ান এই মিডফিল্ডারকে বলা হতো বার্সার সবচেয়ে ডেকোরেটেড তারকা। অ্যাটাকিং হোক বা ডিফেন্সিভ, দুই জায়গাই সামলাতে পারতেন তিনি। প্রয়োজনে নেমে যেতেন গোল বাঁচাতেও।

সেই তারকাই কিনা এখন বার্সার বোঝা। এবারের মৌসুমে মাত্র দুই ম্যাচে জায়গা হয়েছে প্রথম একাদশে। এছাড়া কয়েকটি ম্যাচে নেমেছেন বদলি হিসেবে। বোঝাই যাচ্ছে বার্সা আর তাকে প্রয়োজন মনে করছে না। এর কারণ ইতোমধ্যেই আর্থার মেলো আর ফ্রাঙ্কি ডি ইয়ং নিজেদের অবস্থান শক্ত করেছেন। ফলে তার মাঠে নামা কঠিন হয়ে পড়েছে।

সম্প্রতি এক টিভি শো-তে এ নিয়ে কথা বলেছেন ক্রোয়াট মিডফিল্ডার। জানিয়েছেন বার্সায় ভালো নেই তিনি। তবে দল ছাড়ছেন না তাও নিশ্চিত করেছেন।

সাবেক ফুটলার হোর্হে ভালদানোর টিভি শো-তে রাকিটিচ বলেন, আমার ছোট্ট মেয়ের কাছ থেকে যদি তার খেলনাটা কেড়ে নেওয়া হয়, তার কেমন লাগবে? কষ্ট পাবে। আমিও তেমন অনুভব করছি। তারা আমার কাছ থেকে বল কেড়ে নিয়েছে-আমি ব্যথিত। আমি বুঝি এবং কোচের, ক্লাবের সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা করি।

তিনি বলেন, বার্সেলোনাকে এই পাঁচ বছরে আমি অনেক কিছু দিয়েছি এবং এখানেই আমি নিজেকে উপভোগ করে যেতে চাই। আমার বয়স এখন ৩১, ৩৮ নয়। আমি মনে করি, আমি আমার সেরা ফর্মে আছি।

গ্রীষ্মের দল-বদলে নেইমারকে বার্সেলোনায় ফেরানোর প্রচেষ্টা হয়েছিল। পিএসজি থেকে ব্রাজিলিয়ান তারকাকে দলে টানতে অনেকগুলো শর্তের মধ্যে একটি ছিল, রাকিটিচকে প্যারিসের দলে পাঠানো। ব্যাপারটা ভালো লাগেনি রাকিটিচের। এরপর থেকে তিনি এরনেস্তো ভালভার্দের দলে হয়ে পড়েছেন অনিয়মিত।