‘ব্যালন ডি’অর কিনে নেওয়া হয়েছে’

ষষ্ঠবারের মতো ব্যালন ডি’অর নিজের করে নিয়েছেন বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার লিওনেল মেসি। মৌসুমে ৫১টি গোল করার সুবাদে এই পুরস্কার জিতে নেন তিনি। এবার দ্বিতীয় হয়েছেন ভ্যান জিক আর তৃতীয় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো।

মেসির এবারের ব্যালন ডি’অর জয়কে স্বাভাবিকভাবেই দেখছেন ইতালি ও জুভেন্টাসের ডিফেন্ডার কিয়েলিনি। যদিও ানেকেই মনে করছেন পুরস্কারটা ভ্যান জিকের হাতে উঠার কথা ছিল। তবে কিয়েলিনি মেসিকেই যোগ্য মনে করছেন জিক আর রোনালদো চেয়ে।

তবে খেপেছেন গত বছর পুরস্কারটা রোনালদো না পাওয়ায়, তিনি বলেন, 'মেসি এ বছর ব্যালন ডি'অর জিতেছে সেটা ঠিক আছে। কিন্তু আসল চুরিটা হয়েছিল গত বছর। রিয়াল মাদ্রিদ নিশ্চিত করেছে যে করেই হোক ক্রিশ্চিয়ানো যেন এ বছর ব্যালন ডি'অর জিততে না পারে। এটা সত্যিই অদ্ভুত ব্যাপার।'

ইতালিয়ান তারকা বলেন, ‘আসলে রোনালদোর কাছ থেকে ব্যালন ডি'অরটি চুরি করে রাখা হয়েছে। সবার প্রতি সম্মান রেখেই বলছি, মদ্রিচ তার ক্যারিয়ারের সেরা সময়েও ব্যালন ডি'অর প্রাপ্য ছিল না। এটা রিয়াল মাদ্রিদের নির্দেশনা, যে করেই হোক ক্রিশ্চিয়ানোকে জিততে না দেওয়া। সে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছিল, যদি বিশ্বকাপ দিয়ে যাচাই করতে হয় তাহলে সেটা গ্রিজমান, পগবা কিংবা এমবাপেকে দেওয়া উচিৎ ছিল। মদ্রিচকে দেওয়ার কোন মানেই হয় না।'

২০১৮ সালের গ্রীষ্মে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডের বিনিময়ে রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসের যোগ দেন রোনালদো। কিয়েলিনির ধারণা এ কারণেই বিষয়টি স্বাভাবিকভাবে নেননি রিয়াল কর্তৃপক্ষ। দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে রোনালদোর ব্যালন ডি'অর পাওয়া ঠেকিয়েছেন তারা। আদতে রিয়াল মাদ্রিদ ব্যালন ডি’অর কিনে নিয়েছিল।

২০১৭-১৮ মৌসুমটা অবশ্য দারুণ কাটিয়েছিলেন রোনালদো। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছেন। সর্বোচ্চ গোলদাতাও হয়েছিলেন। ১২ ম্যাচে ১৫ গোলের সঙ্গে ৩টি অ্যাসিস্ট করেছিলেন তিনি। তবে রিয়ালকে অক্সিজেন জুগিয়েছিলেন মদ্রিচই। রোনালদোকে ছাপিয়ে গেছেন বিশ্বকাপের পারফর্ম করে সাদামাটা ক্রোয়েশিয়াকে প্রায় একাই ফাইনালে টেনে নিয়ে। তখন থেকেই তার বন্দনায় মাতে বিশ্বফুটবল।